আজকের দিন-তারিখ

  • শনিবার ( বিকাল ৩:৫৭ )
  • ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং
  • ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী
  • ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( বর্ষাকাল )

Archive Calendar

জুলাই ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুন    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
কক্সবাজারপ্রধান সংবাদ

চকরিয়ায় নিয়ন্ত্রণ নেই নিত্যপণ্যের বাজারে

আজ শনিবার দিনগত রাতে সেহেরী খাওয়ার মধ্যে দিয়ে শুরু হচ্ছে মুসলিম উম্মাহর সংযম সাধনার মাস রমজান। পবিত্র এ মাসে নিত্যপণ্যের বাজার ভোক্তা সাধারণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখতে ইতোমধ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে রাজধানী ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে জোরদার করা হয়েছে বাজার মনিটরিং। হাট-বাজারে টাঙানো হয়েছে নিত্যপণ্যের মূল্য তালিকাও।
রমজানের প্রাক্কালে ভোক্তা সাধারণের দুর্ভোগ লাঘবের লক্ষ্যে সারাদেশের হাট-বাজারগুলোতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় মনিটরিং শুরু করা হলেও ব্যতিক্রম ঘটেছে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায়। বরাবরের মতো এবারো উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার এখনো প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে নেওয়া হয়নি।
এ কারণে উপজেলার বিভিন্ন স’ানের হাট-বাজার ও দোকানগুলোতে প্রতিদিন লাগামহীনভাবে বেড়ে চলছে নিত্যপণ্যের মূল্য। পাশাপাশি আগের মতোই চলছে গলাকাটা মুনাফা, ঠগবাজি ও ওজনে কারচুপির ঘটনা।
বিশেষ করে চকরিয়া শহরের মাছ ও মাংসের দোকানগুলোতে ওজনে কম দেওয়ার ঘটনা সাধারণ নিয়মে পরিণত হয়েছে। ঢাকা শহরে প্রতি কিলোগ্রাম গরুর মাংস সিটি করপোরেশন ৪৭০ টাকা দরে বিক্রির জন্য নির্দেশনা টাঙিয়ে দিলেও চকরিয়া উপজেলার হাট-বাজারে বর্তমানে প্রতি কিলোগ্রাম গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে সাড়ে ৫শ থেকে ৬শ টাকা। একই অবস’া বিরাজ করছে মাছ ও তরিতরকারীর দোকানগুলোতেও।
রমজান মাসে হাট-বাজার ও সুপার শপগুলোতে নিত্যপণ্যের লাগামহীন বাণিজ্য, ভেজাল পণ্য বিক্রি ও ওজনে কারচুপি বন্ধে উপজেলা প্রশাসন ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের মনিটরিং জোরদারের দাবি জানিয়েছেন ভোক্তা সাধারণ।
চকরিয়া শহরে বাজার মনিটরিং ব্যবস’া নিশ্চিত করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনো কোনো ধরনের অভিযান পরিচালনা করা হয়নি। কিন’ বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার ডুলাহাজারা বাজারে স’ানীয় বাজার পরিচালনা কমিটির উদ্যোগে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।
বাজার কমিটি ও সংশ্লিষ্টরা দাবি করেন, ডুলাহাজারা বাজারে বিশেষ করে তরিতরকারী, মাংস, মুরগী ও মাছের দোকানে এসব অবৈধ কর্মকাণ্ড বেশি লক্ষণীয়। ফরমালিনের মতো বিষাক্ত কেমিক্যালযুক্ত ফলমূল, ক্ষতিকারক রঙযুক্ত খাবার ও যত্রতত্র নোংরা পরিবেশে হোটেল বসানো ইত্যাদি যেন সাধারণ বিষয়।
এ অবস’ায় নিত্যপণ্যের বাজারে সম্ভাব্য ভয়াবহ পরিসি’তি এড়াতে বৃহস্পতিবার বিকালে অভিযানে নামে বাজার ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি। অভিযানের সময় কাঁচাবাজারে ওজনে কম দেওয়া ও মাপযন্ত্রে ত্রুটির অভিযোগে শতাধিক বাটখারা জব্ধ করেন তারা। এছাড়াও ওজনে কম দেওয়ার ব্যাপারে বাজারের স’ানীয় ও বহিরাগত সকল ব্যাবসায়ীদের সতর্ক করা হয়।
জানতে চাইলে বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. মফিজ উদ্দিন বলেন ‘ওজনে কম দেওয়ার ব্যাপারে আমরা কোনো ব্যাবসায়ীকে ছাড় দিচ্ছি না। এছাড়াও ক্রেতা সাধারণের যেকোনো অভিযোগ আমরা সাথে সাথে সমাধানের চেষ্টা করি।’
বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. জমির উদ্দিন বলেন, ‘পবিত্র রমজানেও আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। বাজারে কেনাকাটা করতে গিয়ে নিরীহ মানুষ প্রতারিত হবে, আমরা তা কোনোভাবেই মেনে নেবো না।’