1. arif.arman@gmail.com : Daily Coxsbazar : Daily Coxsbazar
  2. dailycoxsbazar@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  3. litonsaikat@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  4. shakil.cox@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  5. info@dailycoxsbazar.com : ডেইলি কক্সবাজার : Daily ডেইলি কক্সবাজার
দশ বছর পর নির্মাণ হচ্ছে সেই ‘যাযাবর সড়ক’ ।। দুই দফায় ৮৯ লাখ টাকা বরাদ্দ - Daily Cox's Bazar News
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশ ::
ডেইলি কক্সবাজারে আপনার স্বাগতম। প্রতি মূহুর্তের খবর পেতে আমাদের সাথে থাকুন।
সংবাদ শিরোনাম ::
কট্টরপন্থী ইসলামী দল হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জ: এসএডিএফ কক্সবাজারের আট তরুণ তরুণীকে ‘অদম্য তারূণ্য’ সম্মাননা জানাবে ঢাকাস্থ কক্সবাজার সমিতি Job opportunity বিশ্বের সবচেয়ে বড় আয়না, নাকি স্বপ্নের দেশ! আল-আকসা মসজিদে ইহুদিদের প্রার্থনা বন্ধের আহ্বান আরব লীগের পেকুয়ায় পুলিশের অভিযানে ৮০ হাজার টাকার জাল নোটসহ গ্রেফতার-১ পেকুয়ায় অস্ত্র নিয়ে ফেসবুকে ভাইরাল : অস্ত্রসহ আটক শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন টেকনাফে একটি পোপা মাছের দাম হাঁকাচ্ছেন সাড়ে ৭ লাখ টাকা ! কক্সবাজারের টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক-১ নিউ ইয়র্কে মেয়র কার্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ নিয়ে কনসাল জেনারেলের আলোচনা

দশ বছর পর নির্মাণ হচ্ছে সেই ‘যাযাবর সড়ক’ ।। দুই দফায় ৮৯ লাখ টাকা বরাদ্দ

ডেইলি কক্সবাজার ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬
  • ২০৯ বার পড়া হয়েছে

jajabor-road-chakoriaদশ বছর ধরে বেহাল অবস্থার কারণে যোগাযোগ ব্যবস্থা নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকা লাখো মানুষের দুঃখ ঘুচতে শুরু করেছে। অবশেষে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা সদরের সঙ্গে কাকারা ইউনিয়নের যোগাযোগের প্রধান সড়কের (সেই যাযাবর সড়ক) পুরোটাই মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করার উদ্যোগ নেওয়ায় কাকারা ও সুরাজপুরমানিকপুর ইউনিয়নের এসব বাসিন্দারা বেশ উৎফুল্ল। তাছাড়া সড়কটি পুরোপুরি সচল হলে পার্শ্ববর্তী পার্বত্য লামা ও আলীকদম উপজেলার সঙ্গে নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারবে, সাথে সাশ্রয় হবে সময়েরও।

জানা গেছে, সড়কটির তিন কিলোমিটারের মধ্যে প্রথম দফায় মাইজ কাকারা থেকে কাকারা ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত ১২শ মিটার এর নির্মাণ কাজ গত রবিবার থেকে শুরু হয়েছে। পরিষদ ভবন থেকে মাঝেরফাঁড়ি সেতু পর্যন্ত বাকি ১৮শ মিটারের কাজ সম্পন্ন করতে গেল ২৪ জানুয়ারি দরপত্র আহবান করেছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)

ভুক্তভোগীরা জানান, ইউনিয়নের সাথে উপজেলা সদরের যোগাযোগের মাধ্যম একমাত্র সড়কটি দীর্ঘ ১০ বছর ধরে কোন ধরনের মেরামত না হওয়ায় এলাকাবাসী সড়কটির নাম দেয় ‘যাযাবর সড়ক’।

প্রথম দফায় গত বছরের ২৮ অক্টোবর দরপত্র আহবান করে এলজিইডি। এখন সড়কটির বাকি অংশের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করার জন্য দরপত্র আহবান করায় এলাকাবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে।

এটির নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হলে কাকারা ও সুরাজপুরমানিকপুর ইউনিয়ন ছাড়াও চকরিয়ার সাথে পার্বত্য উপজেলা লামা ও আলীকদমের সাথে সরাসরি এবং ঝুঁকিমুক্ত সড়ক যোগাযোগ নিশ্চিত হবে। একইসাথে সময়ও সাশ্রয় হবে।

এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী মনজুরুল আলম সিদ্দিকী বলেন, ‘জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটির পুরোটাই প্রথম ধাপেই মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু সেই সময় বাজেট স্বল্পতার কারণে দুই ধাপে কাজ সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত নিই।’

তিনি বলেন, সড়কটি নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে ভুক্তভোগী মানুষের দুঃখদুর্দশার চিত্র বেশ ফলাও করে ফুটে উঠেছিল।

এসব প্রতিবেদনের গুরুত্ব উপলব্ধি করে এই সড়কের জন্য আমি ঢাকা থেকে বিশেষভাবে অর্থ বরাদ্দ এনে বাকি অংশও নির্মাণের দরপত্র আহবান করেছি। এখন সড়কটির নির্মাণ কাজ বাস্তবায়নের পথে। একইসাথে প্রত্যেকটি সড়ক দ্রুত এবং মানসম্মতভাবে নির্মাণের জন্য আমি ঠিকাদারদের ডেকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছি। সড়কের কাজের মান খারাপ হলে কোন ছাড় দেওয়া হবে না বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছি।’

জানা গেছে, কাকারা এবং সুরাজপুরমানিকপুর ইউনিয়নের জনগণের চলাচলের প্রধান মাধ্যম চিরিঙ্গাকাকারামাঝেরফাঁড়িমানিকপুর সড়ক। কিন্তু সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর এবং এলজিইডির দ্বন্দ্বের কারণে দীর্ঘ ১০ বছর ধরে জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটির কোন সংস্কার হয়নি বলইে চলে। এই অবস্থায় সাড়ে নয় কিলোমিটার দীর্ঘ সড়ক থেকে কাকারার তিন কিলোমিটার অংশকে বাদ দিয়ে নিজেদের চলাচলের জন্য নতুন সড়ক নির্মাণ করেন সুরাজপুরমানিকপুরের চেয়ারম্যান আজিমূল হক। প্রতিবছর বন্যায় বিধ্বস্ত হয়ে সড়কটির বেশিরভাগ অংশ চলাচল বিচ্ছিন্ন থাকলেও সেটি নির্মাণে কাকারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বা স্থানীয় রাজনীতিকদের কোন উদ্যোগ ছিল না। এতে যোগাযোগ ব্যবস্থায় মারাত্মক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে এলজিইডি গত ২৮ অক্টোবর প্রথম দফায় ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ১২শ মিটার সড়কের দরপত্র আহবান করে।

কাকারার বাসিন্দা সাংবাদিক আসিফ সিদ্দিকী বলেন, ‘জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটির নির্মাণ কাজ যাতে দ্রুত শেষ করা হয় এবং অল্প সময়ের মধ্যেই যাতে আবারো যাযাবর সড়কে পরিণত না হয় সেজন্য জোর দাবি জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, ‘সড়কটি নিয়ে ইতোপূর্বে বিভিন্ন পত্রিকায় একাধিক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এসব সচিত্র প্রতিবেদন সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি কেড়েছে।’

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স ফরিদুল আলম এর স্বত্ব্বাধিকারী মোহাম্মদ ফরিদুল আলম বলেন, ‘গত বৃহস্পতিবার আমি কার্যাদেশ পেয়েছি, ইতোমধ্যে প্রাথমিক কাজ শুরু করা হয়েছে। বর্তমান সড়কের ওপর নতুন কার্পেটিং করা হবে। কাজ শেষ হতে ১৫ দিনের বেশি লাগবে না।

আর চকরিয়ার মধ্যে আমিই প্রথম কাজ শুরু করবো।’

এলজিইডির চকরিয়া উপজেলা প্রকৌশলী মো. আমিন উল্লাহ বলেন, ‘কার্যাদেশ অনুযায়ী সড়কটির পুরনো কার্পেটিং তুলে খোয়া বিছিয়ে নতুন করে কার্পেটিং করতে হবে। অনেক বছর পরে সড়কটির কাজ শুরু করায় আমরাও যথাযথ তদারকি করবো, যাতে সড়কটির স্থায়িত্ব থাকে।’ উপজেলা প্রকৌশলী আরো জানান, প্রথম অংশের কাজ কয়েকদিনের মধ্যেই সম্পন্ন হবে। সড়কটি বাকি অংশ কাকারা ইউনিয়ন পরিষদ ভবন থেকে মাঝেরফাঁড়ি সেতু পর্যন্ত (১২শ ৩০ মিটার থেকে ২৮শ ৫৫ মিটার) কাজের দরপত্র আহবান করা হয়েছে গেল ২৪ জানুয়ারি, দরপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ১১ ফেব্রুয়ারি। আর ১৫ মে’র মধ্যে কাজ শেষ করতে হবে। এজন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৬৫ লাখ টাকা।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 Dailycoxsbazar
Theme Customized BY Media Text Communications