1. arif.arman@gmail.com : Daily Coxsbazar : Daily Coxsbazar
  2. dailycoxsbazar@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  3. litonsaikat@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  4. shakil.cox@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  5. info@dailycoxsbazar.com : ডেইলি কক্সবাজার : Daily ডেইলি কক্সবাজার
ফলোআপ- উখিয়ায় ভুলু হত্যার ঘটনাটি থানায় এজাহার হিসেবে গণ্যের নির্দেশ দিয়েছে আদালত - Daily Cox's Bazar News
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:২৯ অপরাহ্ন
নোটিশ ::
ডেইলি কক্সবাজারে আপনার স্বাগতম। প্রতি মূহুর্তের খবর পেতে আমাদের সাথে থাকুন।
সংবাদ শিরোনাম ::
কট্টরপন্থী ইসলামী দল হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জ: এসএডিএফ কক্সবাজারের আট তরুণ তরুণীকে ‘অদম্য তারূণ্য’ সম্মাননা জানাবে ঢাকাস্থ কক্সবাজার সমিতি Job opportunity বিশ্বের সবচেয়ে বড় আয়না, নাকি স্বপ্নের দেশ! আল-আকসা মসজিদে ইহুদিদের প্রার্থনা বন্ধের আহ্বান আরব লীগের পেকুয়ায় পুলিশের অভিযানে ৮০ হাজার টাকার জাল নোটসহ গ্রেফতার-১ পেকুয়ায় অস্ত্র নিয়ে ফেসবুকে ভাইরাল : অস্ত্রসহ আটক শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন টেকনাফে একটি পোপা মাছের দাম হাঁকাচ্ছেন সাড়ে ৭ লাখ টাকা ! কক্সবাজারের টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক-১ নিউ ইয়র্কে মেয়র কার্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ নিয়ে কনসাল জেনারেলের আলোচনা

ফলোআপ- উখিয়ায় ভুলু হত্যার ঘটনাটি থানায় এজাহার হিসেবে গণ্যের নির্দেশ দিয়েছে আদালত

ডেইলি কক্সবাজার ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় সোমবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬
  • ২১০ বার পড়া হয়েছে

উখিয়া উপজেলার বালুখালীর এলাকার ইয়াবা ব্যবসায়ি সিন্ডিকেট কর্তৃক দিনমজুর আলমগীর ভুলু হত্যার ঘটনাটি এজাহার হিসেবে গন্য করার জন্য উখিয়া থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

ukhia lasনিহতের স্ত্রী রোজিনা আকতার কর্তৃক কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত-২ এ ১১ জন ব্যক্তিকে আসামী করে ৮ ফেব্রুয়ারী একটি দায়ের করলে আদালতের বিচারক সুশান্ত চাকমা এনির্দেশ দেন। গত ১ জানুয়ারী উখিয়ার বালুখালী জুমেরছড়া গহিন অরণ্য থেকে আলমগীর ভুলুর মৃত দেহ উদ্ধার করে উখিয়া থানা পুলিশ।

অভিযোগে জানা যায়, উখিয়া পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী এলাকার আকবর আহম্মদ নামের এক ব্যক্তির নের্তৃত্বে একটি সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ি চক্র রয়েছে। চক্র প্রধান আকবরের নেতৃর্ত্বে অন্যান্য সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা পাচারের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন লোকজনকে খাওয়াইয়া পেটে করে এলাকায় ও এলাকার বাহিরে পাচার করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত বছরের ৫ নভেম্বর বালুখালী পশ্চিম পাড়ার মৃত শফিকুর রহমানের দিনমজুর ছেলে আলমগীর ভুলু (৩৮) কে প্রলোভনে ফেলে প্রতি প্যাকেটে ৪০টি করে ইয়াবার ৫০টি প্যাকেটে খাওয়াইয়া দেন।

অভিযোগে জানা যায়, উখিয়া পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী এলাকার আকবর আহম্মদ নামের এক ব্যক্তির নের্তৃত্বে একটি সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ি চক্র রয়েছে। চক্র প্রধান আকবরের নেতৃর্ত্বে অন্যান্য সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা পাচারের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন লোকজনকে খাওয়াইয়া পেটে করে এলাকায় ও এলাকার বাহিরে পাচার করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত বছরের ৫ নভেম্বর বালুখালী পশ্চিম পাড়ার মৃত শফিকুর রহমানের ছেলে আলমগীর ভুলু (৩৮) কে প্রলোভনে ফেলে প্রতি প্যাকেটে ৪০টি করে ইয়াবার ৫০টি প্যাকেটে খাওয়াইয়া দেন।

ভুলুর স্ত্রী রোজিনা আকতার জানান. আলমগীর ভুলুর পেটে করে অভিনব কৌশলে ইয়াবা চালান ঢাকা গিয়ে পায়ুপথ দিয়ে আর বের করতে পারেনি। ব্যথা অনুভব করে ঢাকা থেকে ফিরে আসে এলাকায়। উল্লেখিত ইয়াবা গুলো পেটে বহন করায় তা বের করা সম্ভব না হওয়ায় ইয়াবার মালিক আকবরের বরাবর শরনাপন্ন হই। আকবর আহমদ ইয়াবা গুলো বের করে নিতে জোর চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হন। আমার স্বামী আরো অসুস্থ হয়ে পড়ায় স্থানীয় ভাবে ডাঃ মোঃ শাহজাহানের কাছে চিকিৎসাও করান তিনি। কিন্তু এতেও কোন কাজ হয়নি।

শেষ পর্যন্ত ভিটা বাড়ী বিক্রি করে চিকিৎসকের নিকট নেয়ার কথাছিল। মরণযন্ত্রণায় এভাবে প্রায় সপ্তাহ সময় কেটে যায়। এবিষয়ে স্থানীয়ভাবে শালিস বিচারেও ইয়াবার মালিক আকবরের সাথে বসে কোন সুরাহা পায়নি।

তিনি আরো জানান, মৃত্যুর প্রহরগুনা স্বামীকে নিয়ে উখিয়া থানার ওসির কাছেও গিয়ে ছিলাম। তিনিও কোন ব্যবস্থা না নিয়ে পুরো ঘটনার রেকডিং সংক্রান্ত একটি মেমোরি কার্ড নিয়ে ফেলেন ওসি হাবিবুর রহমান। গত ১০ ডিসেম্বর আলমগীর ভুলুকে চিকিৎসার কথা বলে ঘর থেকে বের করে নিয়ে যায়। এর পর আর কোন খোঁজ পাওয়া পায়নি।

গত ১জানুয়ারী বালুখালী জুমের ছড়া নামক গহীন অরণ্য থেকে উখিয়া থানা পুলিশ বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে পেট কাটা অবস্থায় বিবস্ত্র মৃত দেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরবর্তীতে থানা পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে যথাযত কর্তৃপক্ষের সহযোগীতায় মৃত দেহ কক্সবাজার শহরে দাফন করা হয়।

নিহত ভুলুর স্ত্রী রোজিনা আরো বলেন, ইয়াবা ব্যবসায়িরা তার স্বামীর পেট কেটে ইয়াবাগুলো বের করার পর দেহটি জঙ্গলে ফেলে রাখে। বিষয়টি তদন্তকালে ঘটনাস্থল থেকে ভুলুর ব্যবহৃত কাপড় চোপড়, ভুলুর ছবি, বড় ছেলে আশিকুল হাসনাতের ছবি,একটি মোবাইল বুক ও একটি ৫০ টাকার নোট উদ্ধার করে।

এঘটনায় রোজিনা আকতার বাদী হয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ি সিন্ডিকেট নেতা আকবর আহমদ প্রধান আসামী করে গত ২০ জানুয়ারী উখিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়। কিন্তু থানা পুলিশ রহস্যজনক কারণে এজাহারটি নথিভুক্ত করেনি। এমনকি আকবরগং বাড়ী ভিটা কেড়ে নিয়ে পুরো পরিবারকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। তাদের হুমকির কারণে এলাকা ছাড়া হয়ে পথে পথে দিনযাপন করে পুরো পরিবার। এঘটনায় এঘটনায় প্রতিকার চেয়ে ২৬ জানুয়ারী পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে নিহতের পরিবার। এতেও কর্ণপাত করেনি উখিয়া থানা পুলিশ।

অবশেষে গত ৮ ফেব্রুয়ারী নিহতের স্ত্রী রোজিনা আকতার বাদী হয়ে উখিয়া পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী শিয়াইল্যাপাড়ার বাসিন্দা আকবর আহম্মদকে প্রধান আসামী করে স্থানীয় আবদু রহিম, জিয়াবুল হক, কামাল উদ্দিন,ফখরুদ্দিন, আবু তাহের, নুরুল হক, মিজানুর রহমান, আশিক্যা, জয়নাল আবেদীন ও জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত-২ এ একটি মামলা দায়ের করে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ফৌজদারি দরখাস্তটি সরাসরি এজাহার হিসেবে গণ্য করার জন্য উখিয়া থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 Dailycoxsbazar
Theme Customized BY Media Text Communications