1. arif.arman@gmail.com : Daily Coxsbazar : Daily Coxsbazar
  2. dailycoxsbazar@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  3. litonsaikat@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  4. shakil.cox@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  5. info@dailycoxsbazar.com : ডেইলি কক্সবাজার : Daily ডেইলি কক্সবাজার
বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের জায়গা থেকে ৬৯জন দখলদারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নির্দেশ - Daily Cox's Bazar News
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন
নোটিশ ::
ডেইলি কক্সবাজারে আপনার স্বাগতম। প্রতি মূহুর্তের খবর পেতে আমাদের সাথে থাকুন।
সংবাদ শিরোনাম ::
কট্টরপন্থী ইসলামী দল হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জ: এসএডিএফ কক্সবাজারের আট তরুণ তরুণীকে ‘অদম্য তারূণ্য’ সম্মাননা জানাবে ঢাকাস্থ কক্সবাজার সমিতি Job opportunity বিশ্বের সবচেয়ে বড় আয়না, নাকি স্বপ্নের দেশ! আল-আকসা মসজিদে ইহুদিদের প্রার্থনা বন্ধের আহ্বান আরব লীগের পেকুয়ায় পুলিশের অভিযানে ৮০ হাজার টাকার জাল নোটসহ গ্রেফতার-১ পেকুয়ায় অস্ত্র নিয়ে ফেসবুকে ভাইরাল : অস্ত্রসহ আটক শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন টেকনাফে একটি পোপা মাছের দাম হাঁকাচ্ছেন সাড়ে ৭ লাখ টাকা ! কক্সবাজারের টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক-১ নিউ ইয়র্কে মেয়র কার্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ নিয়ে কনসাল জেনারেলের আলোচনা

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের জায়গা থেকে ৬৯জন দখলদারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নির্দেশ

ডেইলি কক্সবাজার ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ২১১ বার পড়া হয়েছে

nirdes-dc-logoচকরিয়া ডুলাহাজারাস্থ বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের সামনে বাগানপাড়া এলাকায় বেহাত ১২একর জায়গা থেকে ৬৯জন দখলদারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নির্দেশ দিয়েছেন পরিবেশ ও বন মন্ত্রানালয়। ইতোমধ্যে মন্ত্রানালয়ের ওই আদেশের কপি বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষন বিভাগ চট্টগ্রামের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা এসএম গোলাম মাওলা’র দপ্তরে এসে পৌঁেছছে। আদেশের অনুলিপির কপি কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের দপ্তরে পাঠিয়ে উচ্ছেদ অভিযান বাস্তবায়নের জন্য একজন ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োগের জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা চেয়েছে বনবিভাগ।
যেসব অবৈধ দখলদারকে উচ্ছেদে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তাঁরা হলেন স্থানীয় রবীন্দ্র দে’র ছেলে উত্তর কুমার দে, ফজল করিমের ছেলে ছাবের আহমদ দুদু, গিয়াস উদ্দিন, বদরুল ইসলাম, মোছেন আলীর ছেলে আলী আহমদ, শাহাদাত কবিরের ছেলে জসীম উদ্দিন, হাবিব উল্লাহ’র ছেলে সরোয়ার রহমান, মমতাজ আহমদের মেয়ে ছেনুয়ারা বেগম, কাল দাশের ছেলে সুনীল দাশ, মোজাফ্ফর আহমদের ছেলে মোহাম্মদ ছাবের, হিমাংসু কান্তি দে’র ছেলে সজল কান্তি দে, ফজল করিমের ছেলে বদরুল ইসলাম, ইসমাইলের ছেলে আজিজুল হক, মনজুর আলমের ছেলে ছাদেক, ফজল করিমের ছেলে আবদুর রহিম, ইসমাইলের ছেলে জকরিয়া, জোনাব আলীর ছেলে মনজুর আলম, আনু মিয়ার ছেলে সফিউল আলম, মোজাফ্ফর আহমদের ছেলে ডা.নুরুল হক, শাহআলমের ছেলে জয়নাল আবেদিন, ফজল করিমের ছেলে জাকের উল্লাহ, আশরাফ আলীর ছেলে ইমাম হোসেন, নজরুল ইসলামের ছেলে হারুনর রশিদ, ফজল করিমের ছেলে আবদুস শুক্কুর, আনু মিয়ার ছেলে জালাল সওদাগর, নুরুল ইসলামের ছেলে শহিদুল ইসলাম সাধু, আমির হোসেনের ছেলে মজিবুর রহমান, মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে সুনা মিয়া, মোনাফ মিয়া, জালালের ছেলে শরিফুল ইসলাম, মোছেন আলীর ছেলে অলি আহমদ, সিরাজুল হকের ছেলে জয়নাল, মোছেন আলীর ছেলে জাকের আহমদ, সাহেব মিয়ার ছেলে নুরু মিয়া, মোছেন আলীর ছেলে আবদুল গফুর, মোছেন আলীর ছেলে ছাবের আহমদ, নজির আহমদের ছেলে আবদুল জব্বার, আবদুস সবুর, চাঁন মিয়ার ছেলে সমসু আলম, মনিরুজ্জামানের ছেলে মোস্তাক আহমদ, দুদু মিয়ার ছেলে আবুল হাসেম, হাবিবুর রহমানের ছেলে মনজুর আলম, ফয়েজ আহমদের ছেলে আলী আহমদ, শফিকুর রহমানের ছেলে ইসহাক, গনু সওদাগরের ছেলে গিয়াস উদ্দিন, আবদুস ছালামের ছেলে সাহাব উদ্দিন, হাবিব উল্লাহ’র ছেলে মনজুর আলম, ছৈয়দ মাঝির ছেলে লালু, ঠান্ডা মিয়ার ছেলে সিরাজুল হক, নুরুল হোসেন, নুরুল হক, জালাল উদ্দিনের ছেলে আবদুল মজিদ, ইসমাইলের মেয়ে ছকিরন, আবদুস ছালামের ছেলে সাহাব উদ্দিন, ইসমাইলের ছেলে সুনা মিয়া, আবদুল কাদেরের ছেলে আবুল কাসেম, অশিউর রহমানের ছেলে আবদুল জলিল, এখলাছের মেয়ে আমেনা বেগম, কালু মিয়ার ছেলে আবদুস শুক্কুর, নুরুল আলমের ছেলে মনছুর আলম, মৃত শাহাদাত হোসেনের মেয়ে সাহেদা পারভীন ও ফরিদা ইয়াছমিন পাখী, পুতু ড্রাইভারের ছেলে আরাফাত, বশির আহমদের ছেলে সৈয়দ আলম, শফিকুর রহমানের স্ত্রী শাফিয়া ও সামসুল আলম।
ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের বনবিট কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, সাফারি পার্কের সামনে বাগানপাড়া এলাকায় প্রায় ৬৯ দখলদার ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে বনবিভাগের এসব জায়গা দখলে নিয়ে সেখানে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করেন। এ কারনে সাফারি পার্কের জায়গা সংকুচিত হয়ে পড়ার ফলে গতবছরের অক্টোবরে সাফারি পার্কের রেঞ্জ কর্মকর্তা মো.নুরুল হুদা স্বাক্ষরিত দখলদারদের একটি তালিকা বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষন বিভাগ চট্টগ্রামের বিভাগীয় বনকর্মকর্তার কার্যালয়ে পাঠানো হয়। ওই তালিকা মতে অবৈধ বসতি সমুহ উচ্ছেদে অনুমতি চেয়ে পাঠানো হয় পরিবেশ ও বন মন্ত্রানালয়ে। তিনি বলেন, মন্ত্রানালয় তালিকাটি হাতে পেয়ে তদন্তের মাধ্যমে যাছাই বাছাই করে এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য লিখিত নির্দেশ দিয়ে চলতিবছরের ৪ জানুয়ারী চট্টগ্রামের বিভাগীয় বনকর্মকর্তার দপ্তরে পাঠিেেয়ছেন। নির্দেশনার ওই কপির একটি অনুলিপি বিভাগীয় বনকর্মকর্তার দপ্তর থেকে ইতোমধ্যে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো হয়েছে। নির্দেশনার অনুলিপিতে বনবিভাগের পক্ষ থেকে অবৈধ এসব দখলদারকে উচ্ছেদে অভিযান পরিচালনার জন্য একজন ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োগ দেয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়েছে।
সাফারি পার্কের রেঞ্জার মো.নুরুল হুদা বলেন, মন্ত্রানালয়ের আদেশের কপি ইতিমধ্যে বিভাগীয় বনকর্মকর্তার দপ্তর থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন ও উচ্ছেদ অভিযানে একজন ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োগের জন্য কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে সুপারিশ জানিয়ে পাঠানো হয়েছে। জেলা প্রশাসন এব্যাপারে নীতিগত সিদ্বান্ত নেয়ার পর একজন ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োগ দিলেই যে কোন সময় এসব অবৈধ দখলদারকে উচ্ছেদে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 Dailycoxsbazar
Theme Customized BY Media Text Communications