আজকের দিন-তারিখ

  • শনিবার ( বিকাল ৩:২০ )
  • ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং
  • ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী
  • ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( বর্ষাকাল )

Archive Calendar

জুলাই ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুন    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
কক্সবাজারজাতীয়

বদি কেন আত্মসমর্পণ করবে, প্রশ্ন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, কক্সবাজার সাবেক সংসদ আবদুর রহমান বদি যদি ইয়াবা ব্যবসায়ী হিসেবে অভিযুক্ত না হয়, সে কেন আত্মসমর্পণ করবে? তার আত্মসমর্পণ করার কিছু নেই। তবে তার পরিবারের বা আত্মীয়-স্বজনরা আত্মসমর্পণ করলে করতে পারে। সে বিষয়ে আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখতে পারেন।

সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি আত্মসমপর্ণ করতে যাচ্ছেন বলে এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে সরস্বতী পূজামণ্ডপ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের করা এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

প্রসঙ্গত, ইয়াবার প্রবেশদ্বার খ্যাত, কক্সবাজার জেলায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীরা আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছেন। স্বেচ্ছায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে আগ্রহী এই ইয়াবা কারবারীদের ডাকে সাড়া দিয়েছে সরকারের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী মহল।

দীর্ঘদিন এ ব্যবসা থেকে অর্জন করা অর্থের মায়া ভুলে প্রায় ১৩০-১৫০ জন ইয়াবা ব্যবসায়ী স্বাভাবিক জীবনে ফেরার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

আত্মসমর্পণের অপেক্ষায় থাকা এসব ইয়াবা ব্যবসায়ীদের মধ্যে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ছাড়াও সংশ্লিষ্ট জেলার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করা তালিকার ৭৩ জন মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে কমপক্ষে ৫০ জন রয়েছেন। তাছাড়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সর্বশেষ করা ইয়াবা ব্যবসায়ীর তালিকার ১ হাজার ১৫১ জনের মধ্যে এরা সবাই আছেন বলে জানা গেছে।

জানা যায়, প্রায় ১৫০ জনের মতো দেশি-বিদেশী ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণ বিষয়টি নিয়ে ১ মাস ধরে কাজ করছেন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের একটি দল।

সংশ্লিষ্ট পুলিশ সূত্র জানায়, মূলত সরকারের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পরেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে পুলিশ প্রক্রিয়াটি বাস্তবায়নে জন্য হাত দেন। ইতিমধ্যে আত্মসমর্পণ করতে ইচ্ছুক ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পুলিশের হেফাজতে চলে গেছে।

আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছেন মরণনেশা ইয়াবার ‘প্রধান গডফাদার’ হিসেবে খ্যাত সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি। সেই লক্ষ্যে তিনি প্রস্তুতিও নিচ্ছেন। নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্র বিষয়টি জানিয়েছে।

তবে, উপজেলা নির্বাচনের প্রার্থী চূড়ান্ত করার পরই বদি আত্মসমর্পণ করবেন বলে তার ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানায়। আত্মসমর্পণের ফলে কারাবরণ করতে হলে সেই প্রস্তুতিও বদি সম্পন্ন করে রেখেছেন।

ইতোমধ্যে আত্মসমর্পণের প্রথমিক শর্ত হিসেবে বদির ৩ ভাই-বোন ও ভাগিনাসহ পরিবারের ২০ জন সদস্য পুলিশ হেফাজতে চলে গেছে। সবকিছু ঠিক থাকলে ফেব্রুয়ারির ১৫ অথবা ১৬ তারিখ সাবেক সংসদ বদি ও তার ভাই দেশের অন্যতম শীর্ষ ইয়াবা কারবারি আব্দুর শুক্কুর আত্মসমর্পণ করবেন বলেও সূত্র জানায়।