1. arif.arman@gmail.com : Daily Coxsbazar : Daily Coxsbazar
  2. dailycoxsbazar@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  3. litonsaikat@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  4. shakil.cox@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  5. info@dailycoxsbazar.com : ডেইলি কক্সবাজার : Daily ডেইলি কক্সবাজার
বাড়ি থেকে ডেকে কুপিয়ে বিডিআর সৈয়দকে হত্যা, ছেলে-ভাই-বোনও জখম - Daily Cox's Bazar News
বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ১০:১৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশ ::
ডেইলি কক্সবাজারে আপনার স্বাগতম। প্রতি মূহুর্তের খবর পেতে আমাদের সাথে থাকুন।

বাড়ি থেকে ডেকে কুপিয়ে বিডিআর সৈয়দকে হত্যা, ছেলে-ভাই-বোনও জখম

ডেইলি কক্সবাজার ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় শনিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২০
  • ৮৫ বার পড়া হয়েছে

ডিসিবি প্রতিবেদক.

লকডাউনে অবাঞ্চিত চলাচল রোধে উঠান বন্ধ করার জের ধরে বিডিআর সৈয়দ নামে এক ব্যাক্তিকে কুপিয়েও জবাই করে হত্যা করেছে এলাকার ইয়াবা কারবারি দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় দুর্বৃত্তদের ধারালো অস্ত্রের কুপে নিহতের ভাই, ছেলে ও বোনও আহত হয়েছেন। কক্সবাজার পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের পাহাড়তলী ইসলামপুর ইসুলুরঘোনা এলাকায় শনিবার রাত ৮টার দিকে এ হত্যাকান্ড ঘটে। আহতদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। হত্যাকান্ডের জেরে ইয়াবার চালান লুটের পূর্ব ঘটনাও রয়েছে বলে দাবি করছে অসমর্তিত সূত্র।

নিহত সৈয়দ আলম ওরফে বিডিআর সৈয়দ (৬৫) পাহাড়তলীর ইসুলুরঘোনার গোলাম কবির ওরফে মাইক বুইজ্জার ছেলে। হামলায় জখম হয়ে মৃত্যুর সাথে লড়ছেন সৈয়দ আলমের ছেলে মো. জুয়েল (৩৪)। পিতা-ছেলেকে উদ্ধার করতে গিয়ে কোপাঘাতে জখম হয়েছেন, বিডিআর সৈয়দের ভাই খুরশেদ আলম ধলু (৪৫), বোন জুনু বেগম (৪০)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, কক্সবাজার পৌরসভার দক্ষিণ রুমালিয়ারছরা চেয়ারম্যান ঘাটা থেকে ইসুলেরঘোনায় সহজ যাতায়তের পথ হিসেবে অনেকে বিডিআর সৈয়দের বাড়ির উঠানটি ব্যবহার করতেন। এ সুযোগে উঠান দিয়েই ইয়াবা নিয়ে পাহাড়ঘেরা ইসুলেরঘোনায় যাতায়ত করতেন স্থানীয় চেয়ারম্যানঘাটার আটা কালুর পরিবারের ফরিদ আলমের ছেলে আলমগীর (২৫) ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। এলাকার নিয়মিত পথ থাকার পরও বাড়ির উঠান দিয়ে ইয়াবা নেয়ায় আলমগীরের সাথে বিরোধ বাধে বিডিআর ছৈয়দের ছেলে জুয়েলের। বাধা না মানায় একদিন উঠান দিয়ে যাবার সময় আলমগীরকে ধরে ইয়াবার একটি চালানও খেয়ে ফেলে জুয়েল। এ নিয়ে বাকবিতন্ডা হলে সেখানে পিতা বিডিআর সৈয়দও যোগ দেয়।
সূত্র আরো জানায়, ইয়াবার ঘটনার রেশ শেষ হবার আগেই লকডাউনে অবাঞ্চিত চলাচল রোধ করতে বিডিআর সৈয়দ ঘেরা দিয়ে উঠানটি বন্ধ করে দেয়। এনিয়ে দুদিন আগে আবারো বাকবিতন্ডা হয় ইয়াবা কারবারি হিসেবে পরিচিত আলমগীরদের সাথে। এরই জের ধরে শনিবার সন্ধ্যার পর ফরিদের ছেলে আলমগীর, জাহাঙ্গীর, আতাউল্লাহর ছেলে আলমগীর, তার শ্যালক জলিল ও তাদের সহযোগী বোরহানসহ ৫-৬ জনের একটি চক্র বিডিআর সৈয়দকে ডেকে বাড়ি থেকে বের করে ঘরের একপাশে নিয়ে অতর্কিত কুপাতে শুরু করে। এক পর্যায়ে তিনি পড়ে গেলে জবাই কের দেয়া হয় তাকে।

এদিকে ঘটনা জানতে পেরে সৈয়দের ছেলে জুয়েল, ভাই খুরশেদ আলম ধলু ও বোন জুনু ঘটনা স্থলে এলে তাদেরও কুপায় দুর্বৃত্তরা। তাদের চিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে এলে আলমগীররা পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী জখমীদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়াপর কর্তব্যরত চিকিৎসক সৈয়দ আলম ওরফে বিডিআর সৈয়দকে মৃত ঘোষণা করেন। অন্যান্যরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। জুয়েলের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে চিকিৎসক।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (অপারেশন) মাসুম খান তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ইয়াবা ও পথ বন্ধ করার ঘটনায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে হামলায় বিডিআর সৈয়দ নিহত ও বাকিরা আহত হয়েছে বলে জেনেছি। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। হামলাকারিদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

অপরদিকে, অসমর্তিত একটি সূত্র জানায় একসময় বিডিআর-এ চাকুরি করতেন সৈয়দ আলম। চাকুরি থেকে ফেরার পর তিনি এলাকায় বিডিআর সৈয়দ নামেই পরিচিতি পান। ধীরে ধীরে অপরাধের সাথে জড়িয়ে ডাকাতিসহ অসংখ্য মামলার আসামী হন তিনি। এ ধরণের মামলায় তিনি জীবন সাজা খেটে বেরিয়েছেন কয়েক বছর হয়। পৌরসভার পাহাড়ঘেরা ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ক্রাইমজোনগুলোর পুরাতন ও উঠতি অপরাধীদের সাথে তার যোগাযোগ সুচারু ছিল বলে দাবি করেন সূত্রটি। সদর থানা পুলিশ এসব অভিযোগ পেয়েছে বলে উল্লেখ করেছে।

শেয়ার করুন

One thought on "বাড়ি থেকে ডেকে কুপিয়ে বিডিআর সৈয়দকে হত্যা, ছেলে-ভাই-বোনও জখম"

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 Dailycoxsbazar
Theme Customized BY Media Text Communications