আজকের দিন-তারিখ

  • শুক্রবার ( রাত ১১:৪৬ )
  • ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং
  • ২৭শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
  • ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( বসন্তকাল )

Archive Calendar

ফেব্রুয়ারী ২০২০
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯  
ক্রীড়াঙ্গন

‘বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নিয়ে আশাবাদী হবার উপাদান আছে’

94views

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ জাতীয় দলকে নিয়ে আশাবাদী বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বিশ্বাস, বাংলাদেশ দল বিশ্বকাপ খেলতে যাবে দেশের ১৬ কোটি মানুষের বুক ভরা দোয়া ও শুভ কামনা নিয়ে। গোটা জাতির শুভ কামনায় দল অবশ্যই ভাল খেলবে।   

গতকাল রবিবার পল্টন ময়দানে জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংগঠক পরিষদের তিন দিনব্যাপী লোকজ ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শেষ দিনের শেষ পর্বের প্রধান অতিথি হয়ে গিয়েছিলেন নাজমুল হাসান পাপন। সেখানে আসন্ন বিশ্বকাপে জাতীয় দলের সম্ভাব্য রূপরেখা এবং আয়ারল্যান্ড সফরে দল কেমন হবে? তা নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করলেন বিসিবি সভাপতি। 

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘বিশ্বকাপে দল দিতে হবে বলে আমরা এখন ১৫ জনের দল দিয়ে দিচ্ছি। তবে এর আগে আয়ারল্যান্ডে যে তিন জাতি ক্রিকেট আছে, তার জন্যও কিছু অপশন রাখা হবে। সেখানেও আমরা অপেক্ষা করে দেখবো কারা ভাল পারফর্ম করছে। নতুন কয়েকজনকে হয়তো সুযোগ দেওয়া হবে। সেখান থেকে যারা ভাল খেলবে, তারা আবার দলে চলেও আসতে পারে। এই সুযোগটা আমরা রেখেছি।’

এদিকে ক্রিকেটারদের বিশেষ করে ব্যাটসম্যানদের কয়েকজনের পারফর্ম্যান্সের ধারাবাহিকতা কম নিয়েই খানিক চিন্তিত নাজমুল হাসান পাপন। তাঁর মনে হয়, এটাই বিশ্বকাপে ভাল করার একমাত্র অন্তরায়।

পাপন বলেন, ‘আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো ধারাবাহিকতা নেই। সৌম্য-লিটন একদিন রান করল ১০ ম্যাচে খবর নেই। সাব্বিরও এক ম্যাচে ভীষণ মারতে পারে, দারুণ হাত খুলে মারল, তারপর আবার দুই-তিন খেলায় খবর নেই। এই ধারাবাহিকতায় কমতি আমাদের অবশ্যই একটা সমস্যা। আমরা তা স্বীকার করছি।’

এদিকে মাইনাস পয়েন্টের পাশাপাশি ইতিবাচক দিক এবং আশাবাদী হবারও যথেষ্ঠ কারণ খুঁজে পাচ্ছেন নাজমুল হাসান পাপন। তাঁর বিশ্বাস, বিশ্বকাপে টিম বাংলাদেশকে নিয়ে আশাবাদী হবার উপাদান আছে। তা হলো দলটি সাহসী, ভয়-ডর নেই কারো ভিতর।

পাপন বলেন, ‘দলটা যাচ্ছে, সবার মনে অনেক সাহস আছে। দলটির সাহস অনেক বড় পুঁজি ও শক্তি। তামিম, সাকিব, মাশরাফি, মুশফিক, রিয়াদরা কাউকে ভয় পায় না। এখন নতুন যোগ হয়েছে বেশ নতুন কয়েকটি ছেলে। মোস্তাফিজ আর মিরাজও কাউকে ভয় পায় না। মোদ্দা কথা আমরা একটি সাহসী দল নিয়ে যাচ্ছি। দলের ক্রিকেটারদের সাহস আছে। তারা ভয় পায় না। সাহসী দল নিয়ে যাচ্ছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘সবচেয়ে বড় কথা, খেলায় হার-জিত আছে। আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই করব। এছাড়াও পারফরম্যান্স তো আছেই, এর বাইরে ১৬ কোটি মানুষের দোয়া নিয়ে যাচ্ছে দল। আমার বিশ্বাস এবং আশা তারা ভাল খেলবে।’