আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার ( রাত ৮:৪০ )
  • ২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
  • ১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
  • ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( শরৎকাল )

Archive Calendar

আগস্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
ক্রীড়াঙ্গন

ভিএআর বিতর্কে আয়াক্সকে হারাল রিয়াল

14views

ক্রীড়াঙ্গন ডেস্ক :‘দুর্দান্ত আয়াক্সকে হারাল রিয়াল’। ‘বেনজেমা-অ্যাসেনসিওর গোলে জয় রিয়ালের’। ‘মন জিতল আয়াক্স, ম্যাচ জিতল রিয়াল’। ‘আয়াক্সের জয় ছিনিয়ে নিল রিয়াল’। সবগুলোই হতে পারত চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে আয়াক্সের বিপক্ষে রিয়াল মাদ্রিদের ম্যাচের শিরোনাম। তবে সে সবকে ছাপিয়ে আলোচনা জুড়ে ভিএআর(ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি) প্রযুক্তি। প্রথমার্ধে প্রযুক্তির ফাঁদে পড়ে আয়াক্সের একটি গোল বাতিল হয়। পরে বেনজেমা এবং অ্যাসেনসিওর গোলে ২-১ ব্যবধানের জয় ছিনিয়ে নেয় লস ব্লাঙ্কোসরা।

ম্যাচের প্রথমার্ধে ইয়োহান ক্রুইফ অ্যারিনায় আয়াক্সের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি রিয়াল। বল দখল থেকে শুরু করে গোলে সুযোগ তৈরি সব দিক থেকেই এগিয়ে ছিল তারা। ডি জংদের আক্রমণের সামনে অসহায় দেখাচ্ছিল রিয়ালকে। দারুণ খেলেই প্রথমার্ধে রিয়ালের জালে বল জড়ায় স্বাগতিকরা। কিন্তু সে গোল বাতিল হয়ে যায় ভিএআর প্রযুক্তি ব্যবহারের পর। গোলটি অফসাইট ছিল কিনা তা নিয়ে থেকে গেছে ধন্দে।  

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফেরে রিয়াল মাদ্রিদ। ধার বাড়ায় আক্রমণে। ম্যাচের ৬০ মিনিটে দারুণ এক শটে গোল করেন লস ব্লাঙ্কোস স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা। তাকে ওই গোল করতে দারুণ এক পাস দেন ভিনিসিয়াস। বেনজেমা কেবল দেখে শুনে শটটা জালে জড়িয়ে দিয়েছেন। পূর্ণ করেছন ইউরোপ সেরার প্রতিযোগিতায় ৬০তম গোল। তবে বল নিয়ে ঢোকা থেকে পাস দেওয়া পর্যন্ত দারুণ নিপুনতা দেখিয়েছেনি ভিনিসিয়াস। 

রিয়ালের লিড অবশ্য বেশিক্ষণ রাখতে দেয়নি আয়াক্স। ম্যাচের ৭৫ মিনিটে গোল শোধ দেয় তারা। নেদারল্যান্ড ক্লাবের হয়ে গোল করেন হাকিম জয়েস। এরপর ৮৭ মিনিটে বদলি নামা অ্যাসেনসিও গোল করেন। ভাসকেস-কারভাহাল হয়ে দারুণ এক বল পান তিনি। গোলের সামনে পাওয়া ওই বলে পা ছুঁইয়েই গোল পেয়ে যান স্পেন তারকা। 

ম্যাচের অবশ্য রিয়াল গোল দেওয়ার আরও বেশি কিছু সুযোগ পেয়েছে। ভিনিসিয়াস প্রথমার্ধে দারুণ এক শট নেন। দ্বিতীয়ার্ধেও সুযোগ তৈরি করে তারা। তবে সহজ বেশ কিছু সুযোগ মিস করেছে আয়াক্স। গোলরক্ষকের গায়ে মেরে কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করেছে তারা। তাই রিয়ালের সমান ৫০ ভাগ বল পায়ে রাখা আয়াক্স ঘরের মাঠে জয়ী দলে থাকতে পারতো। দুই অ্যাওয়ে গোল পেয়ে যাওয়ায় চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের স্বপ্ন প্রায় অসম্ভেবে পরিণত হয়েছে তাদের।

এছাড়া ওপর ম্যাচে জার্মান ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ডুকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে েইংলিশ ক্লাব টটেনহ্যাম। প্রথমার্ধে গোল করতে পারেনি কোন দল। তবে ঘরের মাঠে দ্বিতীয়ার্ধ পুরোপুরি নিজেদের দখলে নেয় স্পারসরা। দলের হয়ে সন ইয়ং মিন ৪৭ মিনিটে প্রথম গোল করেন। এরপর ৮৩ ও ৮৬ মিনিটে আরও দুই গোল করে শেষ আটে এক পা দিয়ে রাখল পচেত্তিনোর দল।