1. arif.arman@gmail.com : Daily Coxsbazar : Daily Coxsbazar
  2. dailycoxsbazar@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  3. litonsaikat@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  4. shakil.cox@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  5. info@dailycoxsbazar.com : ডেইলি কক্সবাজার : Daily ডেইলি কক্সবাজার
মিয়ানমারের পলিথিনে সয়লাব উখিয়ায় - Daily Cox's Bazar News
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন
নোটিশ ::
ডেইলি কক্সবাজারে আপনার স্বাগতম। প্রতি মূহুর্তের খবর পেতে আমাদের সাথে থাকুন।
সংবাদ শিরোনাম ::
কট্টরপন্থী ইসলামী দল হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জ: এসএডিএফ কক্সবাজারের আট তরুণ তরুণীকে ‘অদম্য তারূণ্য’ সম্মাননা জানাবে ঢাকাস্থ কক্সবাজার সমিতি Job opportunity বিশ্বের সবচেয়ে বড় আয়না, নাকি স্বপ্নের দেশ! আল-আকসা মসজিদে ইহুদিদের প্রার্থনা বন্ধের আহ্বান আরব লীগের পেকুয়ায় পুলিশের অভিযানে ৮০ হাজার টাকার জাল নোটসহ গ্রেফতার-১ পেকুয়ায় অস্ত্র নিয়ে ফেসবুকে ভাইরাল : অস্ত্রসহ আটক শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন টেকনাফে একটি পোপা মাছের দাম হাঁকাচ্ছেন সাড়ে ৭ লাখ টাকা ! কক্সবাজারের টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক-১ নিউ ইয়র্কে মেয়র কার্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ নিয়ে কনসাল জেনারেলের আলোচনা

মিয়ানমারের পলিথিনে সয়লাব উখিয়ায়

ডেইলি কক্সবাজার ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় রবিবার, ১০ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ৩৫৯ বার পড়া হয়েছে

polithinমিয়ানমার থেকে চোরাই পথে পলিথিন আসছে। চোরাই পথে আসা পলিথিনের কারনে দেশিয় শিল্প প্রতিষ্টানের উৎপাদিত পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসন মাঝে মধ্যে ভ্রাম্যমান আদালত গঠন করে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, মেয়াদ উর্ত্তীণ পণ্যে সামগ্রী বিক্রি সহ যত্রতত্র ভাসমান দোকান পাট উচ্ছেদে তাৎক্ষনিক জেল জরিমানা করলে ও মিয়ানমারের তৈরি পরিবেশ বিরোধী পণ্যে বিক্রি ব্যবহারের উপর কড়াকড়ি আরোপ না করায় সচেতন মহলের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।
সরেজমিন উখিয়ার ব্যস্ততম এলাকা সোনার পাড়া, মরিচ্যা, কোটবাজার, উখিয়া সদর ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি খুচরা পণ্যে বিক্রেতার কাছে মজুত রয়েছে বিভিন্ন চাইজের পলিথিন। বিশেষ করে তরি তরকারি, মোয়ামুড়ি, মাছ মাংস ও নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিক্রেতারা নিষিদ্ধ পলিথিন নির্ভর হয়ে বেচা বিক্রি করছে।
জানতে চাইলে মাছ বিক্রেতা হিমাংস বড়–য়া জানান, পলিথিনের প্যাকেট না দিলে মাছ বিক্রি হচ্ছেনা বিধায় বাধ্য হয়ে পলিথিন রাখতে হচ্ছে। এ সব পলিথিন কোথা থেকে সংগ্রহ করেন জানতে চাইলে ওই মাছ বিক্রেতা জানায় কথিপয় ব্যক্তি বাজারে এসে পলিথিনের প্যাকেট সরবরাহ করছে।
উখিয়া বাজারে একজন পলিথিন বিক্রেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, এ সব পলিথিন চোরা কারবারীরা তাদের কাছে নিয়মিত সরবরাহ করে থাকে।
পরিবেশ বাদীদের মতে, যত্রতত্র পলিথিন ব্যবহারের ফলে এ সব পলিথিন ময়লা আবর্জনার সাথে নাল নর্দমায় আটকে গিয়ে পরিবেশ দূষণ করছে। পাশা পাশি বর্ষার সময় পলিথিনের বর্জ্য কৃষি জমিতে পড়ে অক্ষয় অবস্থায় থাকছে। যার ফলে অর্থকরি ফসল কৃষিজাত পণ্য উৎপাদন আশানুরুপ হচ্ছেনা। পরিবেশবীদদের তথ্যমতে, পলিথিনের জাবতীয় বর্জ্য বর্ষাকালে খাল নদি ছরা ব্যয়ে সরাসরি সমুদ্রতে গিয়ে পড়ছে। পরে এ সব পলিথিনের বর্জ্য লবনাক্ত পানির সাথে মিশে একাকার হয়ে যাচ্ছে। আবার লবন চাষিরা সমুদ্রের লবনাক্ত পানি দিয়ে তৈরি করছে রান্ন বান্নার অন্যতম উপাদান লবন, যা খাবারের সাথে মিশে এ সব পলিথিন মিশ্রিত লবন মানব দেহে প্রবেশ করছে। এতে বিভিন্ন রোগব্যধিতে আক্রান্ত হয়ে ¤œুষ অকালে মৃত্যুবরন করলে ও পলিথিন ব্যবহারে কেউ সতর্ক হচ্ছেনা। সম্প্রতি কোটবাজার দোকান মালিক সমিতি সহ বিভিন্নস্থরের লোকজনদের সাথে মতবিনিময়কালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃমাঈন উদ্দিন পলিথিন ব্যবহার ও বাজার জাতকরন বন্ধে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দেন। এ সময় তিনি বলেন, পলিথিন বিক্রির অপরাধে জেল জরিমানা সহ উভয় শাস্তি বিধিবিধান রয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 Dailycoxsbazar
Theme Customized BY Media Text Communications