1. arif.arman@gmail.com : Daily Coxsbazar : Daily Coxsbazar
  2. dailycoxsbazar@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  3. litonsaikat@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  4. shakil.cox@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  5. info@dailycoxsbazar.com : ডেইলি কক্সবাজার : Daily ডেইলি কক্সবাজার
রামুর প্রতি ইউনিয়নে ৩০০ কেজি তিত করলা উপহার ইউএনও'র - Daily Cox's Bazar News
বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ১০:২৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশ ::
ডেইলি কক্সবাজারে আপনার স্বাগতম। প্রতি মূহুর্তের খবর পেতে আমাদের সাথে থাকুন।

রামুর প্রতি ইউনিয়নে ৩০০ কেজি তিত করলা উপহার ইউএনও’র

ডেইলি কক্সবাজার ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় রবিবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২০
  • ৭২ বার পড়া হয়েছে

ডিসিবি প্রতিবেদক, রামু.

কক্সবাজারের রম্যভূমি রামুর বিভিন্ন এলাকায় মৌসুমি সবজির ফলন হয় প্রচুর। চলতি সময়ে ক্ষেতে শোভা পাচ্ছে কাঁচা মরিচ, টমেটো, তিত করলাসহ নানা জাতের সবজি। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে সবজি চাষিরা তাদের উৎপাদিত ফসল বাজারে নিয়ে বিক্রি করতে পারছে না। এতে বঞ্চিত হচ্ছে ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি থেকে।

চাষিদের ক্ষতির দিক বিবেচনা করে রামুর ক্ষেতে উৎপাদিত তিত করলা ন্যায্য মূল্যে কিনে উপজেলার প্রতিটি ঘরে উপহার হিসেবে তিত করলা বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছেন রামুর উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রণয় চাকমা।

করোনা পরিস্থিতিতে ত্রাণ হিসেবে রামুর প্রতিটি ইউনিয়নের জন্য ৩০০ কেজি করে তিত করলা বরাদ্দ দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ইতোমধ্যে ইউপি চেয়ারম্যানরা তাদের বরাদ্দ পেয়ে গেছেন। ১৯ এপ্রিল থেকে ঘরে ঘরে তা পৌঁছিয়ে দিবে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ।

বিষয়টি জানাজানি হবার পর ইউএনওর এ কর্মকান্ডের সুনাম করছেন সবাই। অনেকে বলছেন, এক ঢিলে দু’পাখি শিকার করলেন ইউএনও।

সাজু বড়ুয়া নামে একজন জানান, প্রণয় চাকমা অল্পসময়ে কর্মকান্ডে প্রমাণ করেছেন তিনি মানবিক কর্মকর্তা। করোনা পরিস্থিতি শুরুর পর থেকে তৃণমূলের বসত ঘরে গিয়েও তিনি ত্রাণ পৌঁছে দিয়েছেন বলে খবর পেয়েছি। রাতের আঁধারেও তাকে ছুটে চলতে শুনি।

মালেক সিকদার নামে আরেক সামাজকর্মী বলেন, তিত করলা ঔষধি গুণ সম্পন্ন সবজি। রামুতে এর ফলন ভালো হয়েছে। একদিকে চাষিরা উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করতে পেরে স্বস্তি পেলো, অন্যদিকে আপদকালীন সময়ে পরিবারগুলো মৌসুমি সবজিটি পেয়ে উপকৃত হবে। মানবিক ইউএনও বিধায় দু’দিকেই উপকার করলেন প্রণয় চাকমা।

রামুর গর্জনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিত করলা বরাদ্দের কথা গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করে বলেন,এটি বুদ্ধিদীপ্ত সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত।

রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রণয় চাকমা তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণে সবজি চাষিরা তাদের উৎপাদিত ফসল বাজারে নিয়ে বিক্রি করতে পারছে না। চাষিদের দিক বিবেচনায় ন্যায্য মূল্যে ক্রয় করে প্রতি ঘরে তিত করলা বিতরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এতে জনগণ স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের পেলো, আর চাষিরাও পেল তাদের ফসলের ন্যায্য মূল্য। ###

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 Dailycoxsbazar
Theme Customized BY Media Text Communications