আজকের দিন-তারিখ

  • বুধবার ( রাত ১২:৩৭ )
  • ২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
  • ১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
  • ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( শরৎকাল )

Archive Calendar

আগস্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
কক্সবাজার

শাহপরীর দ্বীপের ইয়াবাকারবারি বন্দুকযুদ্ধে নিহত

22views

টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপের শীর্ষ ইয়াবা কারবারি মোহাম্মদ ইব্রাহিম পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। সে শাহপরীর দ্বীপ মিস্ত্রি পাড়া এলাকার নুরুল আমিন ওরফে বল্লার ছেলে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১ দিকে সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ ঝাউবন এলাকায় বন্দুকযুদ্ধের ঘটনাটি ঘটেছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ৩টি এলজি ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। তারা হলেন, থানা পুলিশের এসআই দিপক বিশ্বাস, কনেস্টবল লিটু ও সাকিল।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বন্দুকযুদ্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান ১৭/০৫/২০১৯ তারিখ রাত ২০.৩০ ঘটিকার সময় এসআই/(নিরস্ত্র) দীপক বিশ্বাস সঙ্গীয় অফিসার ও ফোস সহ বহু মামলার পলাতক আসামী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রানালয় সহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার তালিকা ভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী মোঃ ইব্রাহিম (৩২) পিতা- নুরুল আমিন প্রকাশ ভল্লা, সাং- শাহপরীরদ্বীপ মিস্ত্রী পাড়া, সাবরাং ইউপি, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজার শাহপরীরদ্বীপ কোনার পাড়া হইতে গ্রেফতার করেন। পরবতীতে আটককৃত আসামী মোঃ ইব্রাহিম (৩২) কে থানায় আনিয়া ইয়াবা বিষয়ে ব্যাপক জিজ্ঞেসাবাদে সে জানায় যে, গত কয়েক দিন পূর্বে ইয়াবার একটি বড় চালান ইঞ্জিন চালিত বোট যোগে মায়ানমার হইতে আনিয়া টেকনাফ মডেল থানাধীন সাবরাং ইউপিস্থ শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিম পাড়া ফিশিং বোর্ট ঘাটের উত্তর পার্শ্বে ঝাউ বাগান সংলগ্ন বেড়ী বাঁধের পশ্চিম পার্শ্বে বালুর চরে রাখিয়া উক্ত চালানের বেশির ভাগ ইয়াবা বিক্রয় করিলে ও এখনো কিছু ইয়াবা তথায় মজুদ রহিয়াছে। তাৎক্ষণিক আমার নেতৃত্বে থানা হইতে অতিরিক্ত অফিসার ফোর্স সহ তাহার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইয়াবা উদ্ধারের জন্য টেকনাফ মডেল থানাধীন সাবরাং ইউপিস্থ শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিম পাড়া ফিশিং বোর্ট ঘাটের উত্তর পার্শ্বে ঝাউ বাগান সংলগ্ন বেড়ী বাঁধের পশ্চিম পার্শ্বে বালুর চরে পৌঁছেলে পুলিশের উপস্থিতি টের পাইয়া তাহার সহযোগী অস্ত্রধারী ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকে। এতে ঘটনাস্থলে এসআই/দীপক বিশ্বাস, কং/৯৫০২ মোঃ শাকিল, কং/৯৮৬৩ মোঃ লিটু আহত হয়। তাৎক্ষণিক আমার নির্দেশে নিজেদের জীবন সরকারী সম্পত্তি রক্ষার্থে পুলিশ ৩৮ রাউন্ড গুলি করা হয়। এক পর্যায়ে আটককৃত মোঃ ইব্রাহিম (৩২) গুলিবিদ্ধ হয়। গোলাগুলির শব্দ শুনে ঘটনাস্থলে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসতে থাকলে আমরা গুলি করা বন্ধ করে এবং ঘটনাস্থল হইতে অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি করিতে করিতে দ্রুত পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলের আশপাশ এলাকায় ব্যাপক তল্লাশী করে আসামীদের বিক্ষিপ্ত ভাবে ফেলে যাওয়া ১। ০৩ (তিন) টি এলজি (আগ্নেয়াস্ত্র) ২। ১১ (এগার) রাউন্ড শর্টগানের তাজা কার্তুজ, ১৩ (তের) রাউন্ড কার্তুজের খোসা এবং ৫,০০০ (পাঁচ হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাইয়া ঘটনাস্থলে জব্দ তালিকা মূলে জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে গুরুতর আহত গুলিবিদ্ধ মোঃ ইব্রাহিম (৩২) কে ২৩.৫০ ঘটিকার সময় থানা এলাকার জরুরী আইন শৃঙ্খলা ডিউটিতে নিয়োজিত এস.আই/দীপাংকর কর্মকার এর মাধ্যমে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়া গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাহাদের কে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন। পরবর্তীতে তাহাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়া যায়। উল্লেখ্য যে, থানা রেকর্ড পত্র সিডিএমএস পর্যালোচনা করিয়া মোঃ ইব্রাহিম (৩২) এর বিরুদ্ধে ১। টেকনাফ থানার এফ আই আর নং-৫৮, তারিখ- ২৪ নভে, ২০১২; ধারা- ২৫- ই এর ১ (ই) ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন ২। টেকনাফ থানার এফ আই আর নং-৬১, তারিখ- ২৫ নভে, ২০১২; ধারা- ৩৪১/৩৪২/৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৭৯ পেনাল কোড-১৮৬০; ৩। টেকনাফ থানার এফ আই আর নং-১১, তারিখ- ১৪ নভে, ২০০৫; ধারা- ৯(৩)/৭/৩০ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩, ৪। টেকনাফ থানার এফ আই আর নং-০২, তারিখ- ০১ জুলাই, ২০১৫; ধারা- ১৯(১) এর ৯(খ)/২৫ ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন এজাহারে অভিযুক্ত আসামী। বর্ণিত ঘটনা সংক্রান্তে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা/মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।