আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার ( রাত ৮:৪২ )
  • ২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
  • ১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
  • ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( শরৎকাল )

Archive Calendar

আগস্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
জাতীয়রাজনীতি

সংলাপের ৫ এজেন্ডা চূড়ান্ত

15views

অনলাইন ডেস্ক :

শুভেচ্ছা বিনিময় নয়, ‘সংলাপ’ করবেন প্রধানমন্ত্রী। এ নিয়ে এজেন্ডা তৈরি এবং আমন্ত্রিতদের তালিকা প্রণয়নের কাজ চলছে। প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো বলছে, সংলাপের দিনক্ষণ চূড়ান্ত করবেন প্রধানমন্ত্রী। আগামীকাল শনিবার জনসভার পরই প্রধানমন্ত্রী সংলাপের তারিখ চূড়ান্ত করবেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো বলছে, সংলাপে ৫টি এজেন্ডা নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী। এগুলো হলো-

১. দেশের উন্নয়ন এবং অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে নতুন সরকারের কীভাবে কাজ করা উচিত, কোন কোন বিষয়গুলোতে অগ্রাধিকার দেওয়া প্রয়োজন সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে পরামর্শ করবেন।

২. সংসদের বাইরের দলগুলো দেশের উন্নয়নে কীভাবে অবদান রাখতে পারে তা নিয়েও তিনি রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত চাইবেন।

৩. আগামী বছর ২০২০ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী। এই জন্মশতবার্ষিকী প্রধানমন্ত্রী সকলে মিলে উদযাপন করতে চান। এ ব্যাপারেও তিনি রাজনৈতিক দলগুলোর কাছ থেকে পরামর্শ নেবেন।

৪. ২০২১ সালে বাংলাদেশের বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী। স্বাধীনতার ৫০ বছর প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে করার ব্যাপারেও কথা বলতে চান।

৫. সুস্থ একটি রাজনৈতিক সংস্কৃতি গড়ে তোলার জন্য একটি প্রক্রিয়া শুরু করতে চান প্রধানমন্ত্রী।

তবে আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র বলছে, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন বা পূন: নির্বাচনের দাবী নিয়ে কোন আলোচনা হবে না। প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ. টি ইমাম বলেছেন, ‘নির্বাচন হয়ে গেছে এবং অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সারা বিশ্ব প্রশংসা করেছে। এখন নির্বাচন নিয়ে কি আলোচনা হবে? এ নিয়ে আর আলোচনার সুযোগ নেই।

আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী একজন নেতা বললেন, ‘শুধু এবার নয়, প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে মেলামেশা বাড়াতে চান। দেশকে আরো এগিয়ে নেবার ব্যাপারে সবার পরামর্শ চান।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের রাজনৈতিক মতপার্থক্য থাকতেই পারে। কিন্তু দেশের প্রশ্নে আমরা যেন ঐক্যবদ্ধ থাকতে পারি, সে ব্যাপারে একটি সমঝোতার রাজনীতির ধারা সূচনা করতে চান আওয়ামী লীগ সভাপতি।’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ইতিমধ্যে ৬ ফেব্রুয়ারি সংলাপ শুরু করার ঘোষণা দিয়েছে। এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে আওয়ামী লীগের একজন নেতা বলেন,‘তাদের সংলাপের সঙ্গে এই সংলাপের কোন সম্পর্ক নেই। তিনি জানান,‘প্রধানমন্ত্রী হয় সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরুর আগে বসবেন অথবা প্রথম অধিবেশনের পর সংলাপ শুরু করবেন।’ তবে খুব বেশি দেরী করা হবে না, তাহলে সংলাপের তাৎপর্য নষ্ট হয়ে যাবে। 

১ Comment

Comments are closed.