1. arif.arman@gmail.com : Daily Coxsbazar : Daily Coxsbazar
  2. dailycoxsbazar@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  3. litonsaikat@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  4. shakil.cox@gmail.com : ডেইলি কক্সবাজার :
  5. info@dailycoxsbazar.com : ডেইলি কক্সবাজার : Daily ডেইলি কক্সবাজার
সদর হাসপাতালে ১০ দিনে ২৪ শিশুর মৃত্যু - Daily Cox's Bazar News
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন
নোটিশ ::
ডেইলি কক্সবাজারে আপনার স্বাগতম। প্রতি মূহুর্তের খবর পেতে আমাদের সাথে থাকুন।
সংবাদ শিরোনাম ::
কট্টরপন্থী ইসলামী দল হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জ: এসএডিএফ কক্সবাজারের আট তরুণ তরুণীকে ‘অদম্য তারূণ্য’ সম্মাননা জানাবে ঢাকাস্থ কক্সবাজার সমিতি Job opportunity বিশ্বের সবচেয়ে বড় আয়না, নাকি স্বপ্নের দেশ! আল-আকসা মসজিদে ইহুদিদের প্রার্থনা বন্ধের আহ্বান আরব লীগের পেকুয়ায় পুলিশের অভিযানে ৮০ হাজার টাকার জাল নোটসহ গ্রেফতার-১ পেকুয়ায় অস্ত্র নিয়ে ফেসবুকে ভাইরাল : অস্ত্রসহ আটক শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন টেকনাফে একটি পোপা মাছের দাম হাঁকাচ্ছেন সাড়ে ৭ লাখ টাকা ! কক্সবাজারের টেকনাফে র‍্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক-১ নিউ ইয়র্কে মেয়র কার্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ নিয়ে কনসাল জেনারেলের আলোচনা

সদর হাসপাতালে ১০ দিনে ২৪ শিশুর মৃত্যু

ডেইলি কক্সবাজার ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ২২৭ বার পড়া হয়েছে
hospitol-sisu-picকক্সবাজারে ঠান্ডাজনিত রোগে শিশুর মৃত্যু সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। কেবল মাত্র গত ৩ দিনে মারা গেল আরো ৮ শিশু। আগে ১ সপ্তাহে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে গত ১০ দিনে ২৪ শিশুর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে। ঠান্ডাজনিত রোগে এই শিশু মৃত্যুর ঘটনা গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি বলে অভিমত প্রকাশ করেছে সংশ্লিষ্টরা।
সোমবার কক্সবাজার সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডের দায়িত্বরতদের দেয়া তথ্য মতে, ২২ জানুয়ারী থেকে ২৫ জানুয়ারী গত ৩ দিনে নিউমোনিয়া সহ ঠান্ডা জনিত রোগে শিশু ভর্তি হয়েছিল ৬৭ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছে ৭ জন। মৃতদের মধ্যে ৩ জন ছিল নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত। এছাড়া ২১ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে দায়িত্বরত চিকিৎসক সৌরভ দত্তের দেয়া তথ্যে জানা যায়, ১৪ জানুয়ারী থেকে ২১ জানুয়ারী পর্যন্ত এক সপ্তাহে নিউমোনিয়া সহ শীত জনিত রোগে শিশু মারা গেছে ১৭ জন। ওই ১ সপ্তাহে ভর্তি ছিল ৩৩৭ জন। আর মৃত শিশুর বেশিরভাগই হল নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে। এছাড়াও ছিলো, সর্দি, কাঁশি, শ্বাসকষ্টজনিত রোগ। ১০ দিনে নিউমোনিয়াসহ ঠান্ডাজনিত রোগে শিশু ভর্তি হয়েছে ৪০৪ জন আর মারা গেছে ২৪ জন শিশু।
কক্সবাজার সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, শিশু ওয়ার্ডে রোগীর ভীড় বাড়ছে। বিছানা না পেয়ে শিশুদের অবস্থান নিতে হচ্ছে নিচে। তাদের অনেককে অক্সিজেন (নেব্যুলাইজার) দেয়া হচ্ছে।
রোগীর অভিভাবকদের অভিযোগ, যথাসময়ে চিকিৎসা সেবা পাচ্ছেনা রোগীরা। নার্স ও চিকিৎসকদের অবহেলার কারনেই এই সমস্যা হচ্ছে। এছাড়া জরুরী অবস্থার শিশু রোগীদের আইসিও’তে (নিবিড় পর্যবেক্ষন কেন্দ্র) রাখার ব্যবস্থা নেই। যার ফলে শিশু মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে।
চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, অতিরিক্ত রোগীর চাপের মধ্যেও স্বল্প সংখ্যক চিকিৎসক ও নার্স’রা সেবা প্রদানে ক্রটি রাখছে না। মৌসুমগত প্রভাবে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে বেশিভাগই শিশু। শীতের তীব্রতা বাড়র সাথে বাড়ছে এই রোগের সংখ্যা। যার ফলে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল থেকে শুরু করে বিভিন্ন হাসপাতালে হঠাৎ করে বেড়ে গেছে নিউমোনিয়াসহ ঠান্ডা জনিত রোগীর সংখ্যা। সচেতনতার অভাবেই এত শিশু মারা যাচ্ছে। যেসব শিশু মারা যাচ্ছে তার বেশির ভাগই শিশুদের খুব আংশকাজনক অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হচ্ছে। ফলে উন্নত চিকিৎসার জন্য হয় অন্যত্র রেফার করতে হচ্ছে নয়ত চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালেই মারা যাচ্ছে। তবে বেশিরভাগ শিশু চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ হচ্ছে।
কক্সবাজার সদর হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডাক্তার পুচনু জানান, মৌসুম গত প্রভাবে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা। এক্ষেত্রে অসুস্থ শিশুদের অবহেলা না করে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে নিয়ে আসা উচিত। ঠান্ডাজনিত রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় নির্দেশনা অনুযায়ী চিকিৎসকরাও সচেতন রয়েছে সেবা প্রদানে। তবে রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেলে প্রচুর চাপে পড়ে যান সেবিকা ও চিকিৎসকরা। মূলত লোকবল স্বল্পতার কারনে এ সমস্যা’র সৃষ্টি হয়। অনেক সময় ২ জন নার্সকে ৬০-৭০ জন রোগী সামাল দিতে হয়। ওই সময় অনেক রোগী’র অভিভাবক ভুল বুঝে বসে থাকেন দ্রুত সেবা প্রদান করতে না পারলে। এছাড়া আশংকাজনক অবস্থার শিশুদের রাখার জন্য আইসিও নেই কক্সবাজার সদর হাসপাতালে। তবে নবজাতক শিশুদের চিকিৎসরা জন্য রয়েছে স্কেনু (নবজাতক শিশুর বিশেষ সেবা ইউনিট)। যেখানে ০ থেকে ২৮ দিনের শিশুদের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 Dailycoxsbazar
Theme Customized BY Media Text Communications