আজকের দিন-তারিখ

  • শুক্রবার ( সকাল ৮:০৩ )
  • ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
  • ১৬ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
  • ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( হেমন্তকাল )

Archive Calendar

ডিসেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
জাতীয়

১ ও ২ জুন ছুটির দিনেও খোলা থাকবে ব্যাংক

272views

খোলা থাকবে ব্যাংক – তৈরি পোশাক শিল্পে কর্মরত শ্রমিক ও কর্মচারীদের বেতন, বোনাস এবং অন্যান্য ভাতা পরিশোধের সুবিধার্থে তফসিলি ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট শাখাগুলো আগামী ১ ও ২ জুন (শনি ও রোববার) খোলা থাকবে।

রোববার দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠানো এক নির্দেশনায় এ সিদ্ধান্ত জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

নির্দেশনায় বলা হয়, রফতানি বাণিজ্য সচল রাখতে ১ জুন শনিবার (সাপ্তাহিক ছুটির দিন) ও ২ জুন রোববার (পবিত্র শবে কদরের ছুটি) ঢাকা মহানগরী, আশুলিয়া, টঙ্গী, গাজীপুর, সাভার, ভালুকা, নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামে অবস্থিত তফসিলি ব্যাংকের তৈরি পোশাক শিল্প সংশ্লিষ্ট শাখাগুলো পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে খোলা রাখতে হবে।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, আগামী ১ জুন শনিবার পূর্ণ দিবস (সকাল ৯.৩০ থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত) এবং ২ জুন রোববার (সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত, লেনদেন: সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত) খোলা রাখার বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া হলো।

ঈদের আগে বড় সুখবর পেলেন সরকারি চাকরিজীবীরা

প্রশিক্ষণ ভাতা বাড়ানো হয়েছে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের। এখন থেকে বিষয়ভিত্তিক অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণে যুগ্মসচিব ও তদূর্ধ্ব পর্যায়ের কর্মচারীরা এক ঘণ্টা ক্লাস নিলে ভাতা পাবেন ২ হাজার ৫০০ টাকা। উপসচিব এবং তার নিম্ন পর্যায়ের কর্মচারীরা ভাতা পাবেন ২ হাজার টাকা।

এ ছাড়া প্রশিক্ষণার্থী ও এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার ভাতা ও সম্মানী বাড়িয়ে তা পুননির্ধারণ করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রণালয়। অর্থ বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. গোলাম মোস্তফা ২২ মে স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনটি বৃহস্পতিবার জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়, মন্ত্রণালয় বা বিভাগ এবং অধীনস্থ অধিদফতর, পরিদফতর ও দফতর কর্তৃক আয়োজিত বিষয়ভিক্তিক

অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণ পরিচালনার জন্য বক্তা সম্মানী, প্রশিক্ষণ ভাতা এবং অন্যান্য ব্যয় হার পুননির্ধারণ করা হলো।

এতদিন যুগ্মসচিব ও তদূর্ধ্ব পর্যায়ের কর্মচারীর প্রশিক্ষণ সম্মানী পেতেন ১ হাজার ২০০ টাকা। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতি ঘণ্টার সেশনে তারা পাবেন ২ হাজার ৫০০ টাকা। উপসচিব এবং তার নিম্ন পর্যায়ের কর্মচারীরা পেতেন ১ হাজার টাকা। এখন থেকে প্রতি ঘণ্টার সেশনে তারা পাবেন ২ হাজার টাকা।

এছাড়া প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ ভাতাও বাড়ানো হয়েছে। এতদিন জাতীয় বেতন স্কেল, ২০১৫ অনুসারে গ্রেড-৯ থেকে তদূর্ধ্ব পর্যায়ের কর্মচারীরা প্রতিদিন প্রশিক্ষণ ভাতা পেতেন ৫০০ টাকা। নতুনভাবে এটিকে বাড়িয়ে ৬০০ টাকা করা হয়েছে। গ্রেড-১০ থেকে তার নিম্ন পর্যায়ের কর্মচারীর প্রতিদিন প্রশিক্ষণ ভাতা পেতেন ৪০০ টাকা।

এটিকে বাড়িয়ে ৫০০ টাকা করা হয়েছে। একইভাবে, কোর্স পরিচালকের সম্মানী প্রতিদিনের জন্য ১ হাজার থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ৫০০ টাকা,

কোর্স সমন্বয়কের সম্মানী প্রতিদিনের জন্য ৮০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ২০০ টাকা, সাপোর্ট স্টাফদের সম্মানী ৩০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০০ টাকা করা হয়েছে।

প্রশিক্ষণার্থীদের চা/নাস্তার খরচ নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে প্রতিবেলা ৪০ টাকা হারে দিনে ২ বেলা সর্বোচ্চ ৮০ টাকা। তাদের দুপুরের খাবার বাবদ খরচ নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা। এসব ভাতা পুননির্ধারণের জন্য বেশ কিছু শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে।

শর্তগুলো হচ্ছে-মন্ত্রণালয় বা বিভাগ, অধিদফতর, পরিদফতর এবং দফতর কর্তৃক শুধু নিজ নিজ দফতরের কর্মচারীদের বিষয়ভিত্তিক অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণের জন্য এটি প্রযোজ্য হবে। তবে মাঠ পর্যায়ের কর্মচারীদের জন্য সদর দফতর কর্তৃক আয়োজিত প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হবে না।