আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার ( সন্ধ্যা ৭:৪২ )
  • ২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
  • ১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
  • ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ( শরৎকাল )

Archive Calendar

আগস্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহস্পতি শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
সারাদেশ

২০১৮ সালের সিলেবাসে এসএসসি পরীক্ষা!

15views

অনলাইন ডেস্ক : সারা দেশে একযোগে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে চট্টগ্রামে ‘কেন্দ্র সচিবদের ভুলে’ ২০১৮ সালের সিলেবাস অনুসারে প্রণীত প্রশ্নে ২০১৯ সালের পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীন চারটি কেন্দ্রসহ জামালপুরের বকশীগঞ্জেরও একটি কেন্দ্রে নির্ধারিত প্রশ্নের পরিবর্তে ভিন্ন সেটে ভুল সিলেবাসের প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে।

আজ শনিবার থেকে শুরু এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

চট্টগ্রামে যে চার কেন্দ্রে ভুল প্রশ্নপত্র দেওয়া হয়েছে সেগুলো হলো- নগরীর ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও মিউনিসিপ্যাল মডেল উচ্চ বিদ্যালয় এবং কক্সবাজারের পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও উখিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র। তবে কত জন পরীক্ষার্থী এই ভুলের শিকার হয়েছেন, তা জানাতে পারেনি শিক্ষা বোর্ড।

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বলেন, ‘এবার বাংলা পরীক্ষা ২০১৬, ২০১৮ এবং ২০১৯ সালের সিলেবাসের প্রশ্নপত্র অনুসারে হওয়ার কথা। এর মধ্যে চারটি কেন্দ্রে কেন্দ্র সচিবদের ভুলে ২০১৯ সালের সিলেবাসে যাদের পরীক্ষা দেওয়ার কথা, তাদের মাঝে ২০১৮ সালের সিলেবাস অনুসারে প্রণিত প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত চারটি কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানতে পেরেছি। তবে কত জন শিক্ষার্থীর ক্ষেত্রে এটা হয়েছে, তা জানা সম্ভব হয়নি। পরে বিস্তারিত জানাতে পারব।’

এদিকে, জামালপুরের বকশীগঞ্জেও একটি কেন্দ্রে নির্ধারিত প্রশ্নের পরিবর্তে ভিন্ন সেটে ভুল সিলেবাসের প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে।

উলফাতুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে বাংলা প্রথমপত্রের এমসিকিউ পরীক্ষায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী ২০১৯ সালের সিলেবাসের পরিবর্তে ২০১৮ সালের সিলেবাসে প্রণীত প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে পরীক্ষা দেয়। এতে করে ওই বিষয়ে ফেল করার আশঙ্কা করছেন পরীক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, আজ শনিবার বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষায় বকশীগঞ্জ উলফাতুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মোট ৩১১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়। এর মধ্যে ২০১৮ সালের সিলেবাসের অনিয়মিত শিক্ষার্থী ছিল ১৩ জন। ২০১৫-১৬ শিক্ষা বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য ২০১৮ সালের সিলেবাস অনুযায়ী প্রশ্ন এবং ২০১৬-১৭ সনের শিক্ষার্থীদের জন্য ২০১৯ সালের সিলেবাস অনুযায়ী প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়।

পুরাতন ও নতুন পরীক্ষার্থীদের জন্য আলাদা আলাদা প্রশ্নপত্র থাকলেও দুই শতাধিক নতুন শিক্ষার্থীর হাতে তুলে দেওয়া ২০১৮ সনের সিলেবাসের প্রশ্ন। পরীক্ষা শেষে ঘটনা জানাজানি হলে পরীক্ষার্থীরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবহিত করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম প্রাথমিক তদন্ত শেষে উপস্থিত সাংবাদিক ও অভিভাবকদের কাছে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্তের পর অবশ্যই কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।’ 

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সানোয়ার হোসেন জানান, ভিন্ন সেটে প্রশ্ন দিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখা হবে।

এ ব্যাপারে কেন্দ্র সচিব বকশীগঞ্জ উলফাতুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান জানান, ভুলবশত ভিন্ন সিলেবাসের প্রশ্ন বিতরণ ও পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষের সিদ্ধান্তক্রমে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে পরীক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।