সংবাদ শিরোনাম

মাঠপুলিশের দুঃখ শোনার কেউ নেই

১২ থেকে ১৮ ঘণ্টা পর্যন্ত ডিউটি করেন তারা। ক্লান্ত শরীর নিয়ে ব্যারাকে ফিরেও যেন শান্তি নেই। থাকার জায়গার স্বল্পতা, মানহীন খাবার তাদের কাছে কষ্টের জীবনের আরেক নাম। বলছি পুলিশের মাঠপর্যায়ের সদস্যদের কথা। মানুষের নিরাপত্তায় রাত-দিন ২৪ ঘণ্টা সদাপ্রস্তুত থাকলেও নিজেদের সমস্যা বলতে পারেন না কাউকে। সইতেও পারেন না। মাঠপর্যায়ে পুলিশিংয়ের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন কনস্টেবল থেকে এএসআই পদমর্যাদার সদস্যরা। নানা সমস্যায় জর্জরিত মাঠপুলিশ সদস্যদের দুঃখগাথা শোনার কেউ নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কনস্টেবল বলেন, সমস্যার শেষ নেই ভাই। কিন্তু কার কাছে বলব? বলতেও পারি না, ঠিকমতো চলতেও পারি না। মনে দুঃখ। আমাদের কথা ঊর্ধ্বতন স্যাররা একটু চিন্তাভাবনা করুক এটাই চাওয়া।

পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে পুলিশের সঙ্গে সরকারের উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদের বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে উঠে আসা দাবির আলোকে পুলিশে উন্নয়ন কর্মকা- পরিচালনা করা হয়। ওই বৈঠকেও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা নানা দাবি জানালেও মাঠপর্যায়ের পুলিশ সদস্যরা নিজেদের দাবির কথা বলার সুযোগ পান না। ওই বৈঠকে পুলিশের মাঠপর্যায়ের সদস্যদের খোলামেলা কথা বলার সুযোগ দেওয়ার দাবি তাদের।পুলিশ সদস্যরা বলছেন, ৩০ শতাংশ ঝুঁকিভাতার ঘোষণা দেওয়া হলেও তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। এ জন্য কিছু টাকা নির্ধারণ করে দিলেও তা ৩০ শতাংশের অনেক কম। ব্যাটালিয়ন পুলিশের সদস্যরা ছাড়া অন্য কেউ ফ্রেশ মানি পান না। উিউটির যেন কোনো লাগাম নেই। অনেকেই ১২ থেকে ১৮ ঘণ্টা পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন। বাসা বরাদ্দ না পাওয়ায় বেশিরভাগেরই পরিবার-পরিজন থেকে দূরে থেকে দায়িত্ব পালন করতে হয়। অনেকের ঠাঁই মেলে পুলিশ ব্যারাকে। সেই ব্যারাকের অবস্থাও শোচনীয়। অনেক ব্যারাকই বসবাসের অনুপযোগী। বৃষ্টি হলে পানি পড়ে।

এ ছাড়া যানবাহন, পদোন্নতিসহ নানা বিষয়ে বৈষ্যম্যের শিকার বলে দাবি করে কয়েকজন মাঠপর্যায়ের পুলিশ সদস্য বলেন, যে কাপড় দিয়ে আমাদের ড্রেস বানানো হয়, তা একবার ধুলেই ফ্যাকাসে হয়ে যায়। স্যারদের ড্রেস নিশ্চয়ই এ কাপড় দিয়ে বানানো হয় না।একজন এএসআই পদমর্যাদার কর্মকর্তা বলেন, একজন এসআই বেসিক পান ১৬ হাজার টাকা। মাত্র এক র্যাংক নিচে থেকে এএসআইরা পান মাত্র ১০ হাজার ৫০০ টাকা। এ বেতন হারকে বৈষম্য হিসেবে দেখছেন তিনি।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী