সংবাদ শিরোনাম

ফের জটিলতায় কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন

নতুন জটিলতা পার করতে যাচ্ছে কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন। হাইকোর্টের স্থগিতাদেশের মধ্যেই নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আদালতের সার্টিফায়েড কপি কমিশনে যথাসময়ে পৌঁছেনি। এ কারণে আইনি বাধ্যবাধকতায় তফসিল ঘোষণা করতে বাধ্য হয় কমিশন। কিন্তু আদালতের সিদ্ধান্তের বিষয়টি প্রকাশের দেখা দিয়েছে জটিলতা। ফলে ২৫ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন আদৌ অনুষ্ঠিত হবে কিনা তা নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়।

জানা গেছে, কক্সবাজার পৌরসভার ৮টি ওয়ার্ডের নির্দিষ্ট কোন সীমানা নেই। শহরের প্রাণকেন্দ্র কলাতলীর অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভবনেরও নেই নির্দিষ্ট কোন সীমানা । ভবনগুলো কক্সবাজার পৌরসভা,নাকি ঝিলংজা ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত। তাও নির্দিষ্ট নয়। খোদ জেলা প্রশাসকের ডাক বাংলো থেকে শুরু করে মোটেল শৈবাল,কউক ভবন, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, কারাগারসহ বেশ কয়েকটি সরকারি এবং বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ ভবন রয়েছে এই তালিকায়। রয়েছে শতাধিক বাণিজ্যিক ভবনের নাম। পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত না হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে এসব ভবন থেকে কর আদায় করতে পারছিলো না কক্সবাজার পৌরসভা।
২০১২ সাল থেকে এই সমস্যার সৃষ্টি হলেও সমাধানে নেয়া হয়নি কার্যকর কোন পদক্ষেপ। ফলে এই দীর্ঘ সময়ে বাণিজ্যিই ওই এলাকা থেকে কয়েক কোটি টাকার রাজস্ব বঞ্চিত হয়েছে কক্সবাজার পৌরসভা। পৌরসভার মেয়র (বরখাস্ত) সরওয়ার কামাল এবং বর্তমান মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) মাহাবুবুর রহমান চৌধুরী বিষয়টি সুরাহা করতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে শুরু করে জেলা প্রশাসন বরাবর ছুটে গেছেন একাধিকবার। কক্সবাজার পৌরসভার পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠিও দেয়া হয়েছে। তবে, সমস্যার সুরাহা হয়নি।
এদিকে, কক্সবাজার পৌরসভার আওতাধীন গুরুত্বপূর্ণ ভবনগুলোর সীমানা নির্দিষ্ট করতে চলতি বছর হাইকোর্ট একটি রিট ( যার নং ৮০৩৮/‘১৮) আবেদন দায়ের করেন ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সালামতুল্লাহ্ বাবুল। ৬ জুন বিচারপতি জেবিএম হাসান এবং বিচারপতি জাফর আহমদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চে রিট আবেদনটির উপর শুনানী অনুষ্ঠিত হয়। প্রাথমিক শুনানী শেষে আদালত স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে ৮ সপ্তাহের মধ্যে বিষয়টির সুরাহা করতে নির্দেশ দেন। আদালত নির্দেশ দিলেও এর কোন সার্টিফায়েড কপি পৌঁছেনি নির্বাচন কমিশনে। আইনগত বাধ্যবাধকতা না থাকায় তফসিল ঘোষণা করতে সমস্যা হয়নি কমিশনের। কিন্তু বিষয়টি এখন প্রকাশ্যে আসায় দেখা দিয়েছে সমস্যা। ফলে ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন; নাকি নতুনভাবে ঘোষণা করা হবে তফসিল। তা নির্ভর করছে উচ্চ আদালতের পরবর্তী সিদ্ধান্তের উপর।
বিষয়টি জানার জন্য কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) মাহাবুবুর রহমান চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে,তিনি সীমানা সংক্রান্ত হাইকোর্টের দেয়া নির্দেশনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,“ এই সমস্যা নতুন নয়। নির্দিষ্ট না হওয়ায় বেশ কয়েকটি এলাকার রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে পৌরসভা। তফসিল ঘোষণার আগেই আদালত নির্দেশনা দিয়েছিলেন। আগামি ২০ জুন হাইকোর্টে রিট আবেদনের উপর পূর্ণাঙ্গ শুনানী অনুষ্ঠিত হতে পারে। এরপরই নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী