সংবাদ শিরোনাম

বাংলাদেশি সবজি চাষে স্পেন প্রবাসী আল আমীন মিয়ার সাফল্য

প্রবাসীদের কাছে দেশীয় খাবারের কদর থাকলেও আবহাওয়ার তারতম্যের কারণে প্রবাস জীবনে অনেকেই সে স্বাদ থেকে বঞ্চিত হন। আর সে কথা মাথায় রেখেই স্পেনের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী, শিল্পপতি ও ঢাকা ফ্রুটাসের চেয়ারম্যান আল আমীন মিয়া ব্যক্তিগত উদ্যোগে ও স্পেন সরকারের অনুদানে বিস্তৃত মাঠ জুড়ে শুরু করেছেন দেশীয় শাক-সবজির চাষ।

মাদ্রিদের নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চলে পরীক্ষামূলকভাবে আবাদ করছেন বিভিন্ন ধরনের শাক সবজি। নিজেদের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও প্রতিবেশীদের মাঝেও তারা বিলিয়ে দিচ্ছেন পারিবারিক বাগানে চাষ করা টাটকা শাক সবজি। মাদ্রিদের শহরতলি টোলেডোর টেম্বলেকে গ্রামে প্রায় ১০ হাজার মিটার আবাদি জমিতে সরকারি অনুমোদনে দেশি লাউ, লাল শাক, মিষ্টি কুমড়া এবং স্প্যানিশ কালাবাচীনের চাষ করেছেন আল আমীন।

আবাদি জমি ভাড়া নিয়ে প্রাথমিকভাবে শখ করে দেশীয় সবজি চাষ করে এ মৌসুমে পেয়েছেন দেশীয় সবজির স্বাদ। বাজারে এসব সবজির চড়া মূল্য থাকায় আল আমিন মিয়া এসব সবজিতে নিজের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি আত্মীয় স্বজন, বন্ধু বান্ধব ও প্রতিবেশীদের সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে বিলিয়ে দিচ্ছেন।

রোববার(২১অক্টোবর) আল আমীন মিয়া তার চাষকৃত সবজি সংগ্রহের জন্য প্রবাসীদের নিয়ে যান তার কৃষি ভূমিতে। এবং স্থানীয় প্রবাসীরা চাহিদামত সবজি সংগ্রহ করা সুযোগ লাভ করেন।

এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সাবেক সাধারন সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, গ্রেটার ঢাকা এসোসিয়েশনের সভাপতি সোহেল ভূঁইয়া, গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ লুৎফুর রহমান, অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক কবির আল মাহমুদ, কমিউনিটি নেতা এস এম মাসুদ, খলিলুর রহমান, মো ইকবাল,সাঈদ আনোয়ার প্রমুখ।

বিদেশিদের কাছে এসব সবজি অপরিচিত হলেও প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে তা ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। দেশীয় স্বাদ পেতে অনেকেই এসব সবজি সংগ্রহ করছেন আনন্দ মনে।

আল আমিন মিয়া বলেন, এখানে সার বা পানির তেমন সমস্যা নেই। মাটি খুবই উপযোগী সবজি ফলনের জন্য। তাই বাংলাদেশি যে কেউ ইচ্ছে করলে এ পেশায় আসতে পারেন। ফলে যেমন দেশীয় শাক-সবজির স্বাদ পাওয়া যাবে। অপরদিকে অর্থনৈতিকভাবেও লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সবজি সংগ্রহ করতে আসা কমিউনিটির সবাই আল আমীন মিয়ার ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ব্যক্তিগত চাহিদা মিটিয়ে এসব শাক-সবজি বাণিজ্যিকভাবেও বাজারজাত করার সম্ভাবনা রয়েছে।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী