সংবাদ শিরোনাম

ইসিকে যে কারণে ফখরুলের ‘ধন্যবাদ’

আসন্ন একদাশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির একাধিক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করায় নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) ধন্যবাদ জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি আশা করছেন, ন্যায়বিচার পেলে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াও নির্বাচন করতে পারবেন।আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর গুলশান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল।বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘রিটার্নিং কর্মকর্তারা অসংখ্য প্রার্থী অবৈধ ঘোষণা করেছিলেন। এসবের বেশির ভাগই আমাদের দলের প্রার্থী। ইসির শুনানির মধ্য দিয়ে অনেকেই প্রার্থী হওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হয়েছে। আমি ইসিকে ধন্যবাদ জানাই, তারা ন্যায়বিচার করেছেন। এর থেকে আরেকটি বিষয় প্রমাণিত হয়, কমিশন যে সমস্ত কর্মকর্তাদের রিটার্নিং কর্মকর্তাদের দায়িত্ব দিয়েছিলেন, সেখানে প্রার্থীরা ন্যায়বিচার পাননি। সরকারি কর্মকর্তরা যে সরকার দায়িত্বে থাকে বেশির ভাগ সময় তাদের কথা মেনে চলতে হয়। এ কারণে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় ন্যায়বিচার করা সম্ভব হয় না।’ফখরুল বলেন, ‘আমাদের দলের অনেক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ার ঘোষণা-এটা একটা বিজয়। আমাদের আন্দোলনে জনগণের বিজয় যে আজকে আমাদের প্রার্থীরা বৈধ হয়ে এসছেন এবং তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। আশা করি, ন্যায়বিচার যদি প্রতিষ্ঠিত হয়, তাহলে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াও নির্বাচনে বৈধ প্রার্থী হিসেবে বিবেচিত হবেন, ঘোষিত হবেন।’বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আজকে সরকার ভীত-সন্ত্রস্ত বলেই রাষ্ট্রযন্ত্রকে এই নির্বাচনে তারা ব্যবহার করছে। যেটা সাংবিধানিকভাবে নিরপেক্ষ হতে হবে, সেখানে তারা বে-আইনিভাবে হস্তক্ষেপ করছে। যার উদ্দেশ্যে নির্বাচনকে প্রভাবিত করা।’বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সারা দেশে গ্রেপ্তার চলছেই, কোথাও কোথাও বাড়ছে। আজকে খবর এসেছে বিএনপি কোথাও কোথাও সাংগঠনিক ঘরোয়া সভা করছে, সেখানেও বাধা দিচ্ছে। অর্থাৎ দুর্ভাগ্যজনক হলেও প্রশাসন এখানে অনেক ক্ষেত্রে যুক্ত হচ্ছে যে নিরপেক্ষ তাকে নষ্ট করার জন্য। আবার বলছি, নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করুন, দলগুলোর যে অধিকার আছে, তা প্রয়োগ করার সুযোগ দিন, গ্রেপ্তার বন্ধ করুন।’

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী