সংবাদ শিরোনাম

রোহিঙ্গা সমস্যা সহজেই সমাধান হবে না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক :

রোহিঙ্গা একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু উল্লেখ করে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘এটি অগ্রাধিকারমূলক একটি বিষয়। এই সমস্যা সহজেই সমাধান হবে না। মিয়ানমার বাংলাদেশের বন্ধু দেশ। তারা যদি বন্ধুত্বের প্রতিফলন দেয় তবে এই সমস্যা সহজেই মিটে যাবে। এর জন্য অনেক কাঠখড় পোড়াতে হবে। সমস্যার সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আরও ভূমিকা চাই। রোহিঙ্গা ইস্যু জিইয়ে থাকলে ভারত-চীনসহ সবার স্বার্থ ব্যাহত হবে।’

আজ সোমবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম বিদেশ সফরে ভারত যাচ্ছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। যেহেতু ভারত বন্ধুপ্রতীম প্রতিবেশী তাই ভারতে আমি সম্ভবত প্রথম সফরে যাচ্ছি।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন-রাশিয়ার অবস্থান প্রসঙ্গে ড. মোমেন বলেন, ‘তারাও আমাদের সঙ্গে রয়েছে। রাজনীতিতে ভিন্নভাবে বিভিন্ন সময় পরিবর্তন আসে। সেটা নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই।’

মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের অবস্থান নিয়ে আমি একটি স্টাডি করতে বলেছি। এই গবেষণা থেকে রোহিঙ্গাদের কারণে আমাদের দেশের সামাজিক, আর্থিক ও নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কী কী প্রভাব পড়েছে তা জানার চেষ্টা করা হবে।’

চীন-ভারতসহ পশ্চিমা বিশ্ব নির্বাচনকে স্বাগত জানিয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ অংশগ্রহণমূলক ও চমৎকার হয়েছে। সবকটি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। পশ্চিমা বিশ্ব নির্বাচনকে স্বাগত জানিয়ে আমাদের সরকারকে অভিন্দন জানিয়েছে।’

সামনের দিনে অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘অবকাঠামো দুর্বলতা ছাড়াও অনেক বাধা-বিপত্তি রয়েছে। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে এই বাধা অতিক্রম করতে চাই। বিদেশ থেকে কীভাবে বিনিয়োগ আনা যায়, বিলেতের সঙ্গে কীভাবে বাণিজ্য বাড়ানো যায় এসব বিষয় সামনের দিনে অগ্রাধিকার পাবে। সমুদ্রঅর্থনীতিতে যে বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে, তা কীভাবে কাজে লাগানো যায়, এই বিষয়ে কাজ করব।’

আব্দুল মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগ সম্পর্কে সঠিক তথ্যের অনেক ফারাক রয়েছে। বিদেশিরা এখনো মনে করে যে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে বিনিয়োগের সুফল তাদের দেশে নেওয়া যায় না, এদেশে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য অনেক কর দিতে হয়। অথচ মূল তথ্য হলো, এদেশে বিনিয়োগ করলে বিদেশিরা সহজেই লভ্যাংশ নিজেদের দেশে নিতে পারে আর বিদেশিদের কর দিতে হয় না বরং ট্যাক্স হলিডের আওতায় তারা কর অবকাশের সুবিধা পায়। তাই বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে বিশ্বের কাছে সঠিক উপস্থাপনের ব্যবস্থা করব।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বের সঙ্গে বাণিজ্যিক যোগাযোগ বাড়াতে এবং বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ভিত্তি আরও শক্তিশালী করতে এবার অর্থনৈতিক কূটনৈতিক কর্মকাণ্ডে জোর দেওয়া হবে। বহির্বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ ও সম্পর্ক উন্নয়নেও নতুন মাত্রা যোগ করতে চাই। বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে ভিশন ২০৩০ ঘোষণা করেছেন তা বাস্তবায়নে সামনের দিনে অর্থনৈতিক কূটনীতির ওপর জোর দেওয়া হবে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘সরকারের ভিশন টেকসই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আমরা সবার কাছে সহযোগিতা চাই। ২০২১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ পালন করব। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে যা যা প্রয়োজন উদ্যোগ নেব।’

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী