সংবাদ শিরোনাম

কখনো মনের জোর হারিয়ে ফেলবেন না, নেতাকর্মীদের ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক : নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘কেন ভাবছেন আপনারা পরাজিত হয়েছেন? কখনোই মনের জোর-বলকে হারিয়ে ফেলবেন না। হাতশায় নিমজ্জিত হবেন না।’

আজ বুধবার বিকেলে রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে বিএনপির উদ্যোগে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় নেতারা এ আহ্বান জানান।

নেতাকর্মীদের উদ্দশে ফখরুল আরও বলেন, ‘অন্ধকার পথকে সূর্যের সেই প্রভাত-সুর্যোদয় হবেই, সে দিকে আপনাদের এগিয়ে যেতে হবে। দেশনেত্রী কারাগারে আছেন একবারেরর জন্যও তিনি আমাদেরকে মনোবল হারানোর কথা বলেন নাই। বার বার বলে যাচ্ছেন- তোমরা সংগ্রাম করো, জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে সংগ্রাম করো। সেই সংগ্রামই আমরা করে চলছি।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রমাণ হয়েছে আওয়ামী লীগ কোনো গণতান্ত্রিক শক্তি নয়, তারা এখন ফ্যাসিবাদী শক্তি। এই ফ্যাসিবাদী শক্তিকে মোকাবিলা করতে সংগঠনকে অত্যন্ত শক্তিশালী করতে হবে এবং সংগ্রামী তৈরি করতে হবে। এই লড়াইকে আমাদের আরও সামনের দিকে নিতে হবে, আরও ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। একুশের চেতনাকে ধারণ করে ত্যাগ স্বীকার করার মানসিকতা নিয়ে আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘একটা বিশ্বজনমত তৈরি হচ্ছে এই স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে। এদের বিরুদ্ধে আমাদেরকে অবশ্যই রুখে দাঁড়াতে হবে।’

অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি ও তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। কারাবন্দি নেতাকর্মীদের মুক্তি ও সবার মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান মির্জা ফখরুল।

খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ জানিয়ে বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন, ‘দীর্ঘ একবছর ধরে গণতন্ত্রের মাতা কারাগারে রয়েছেন, তার সুচিকিৎসা হচ্ছে না। তাকে একটা নির্জন কারাগারে রাখা হয়েছে সেটা মানবাধিকারের বিরুদ্ধে। এই মানবাধিকার লঙ্ঘন করবার জন্যে দায়িদের বিচার করতে হবে।’

আলোচনা সভায় ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘একুশের চেতনা সম্পূর্ণভাবে ধূলিসাৎ করে দিয়েছে বর্তমান সরকার। ১৯৭৫ সালে আওয়ামী লীগ সরকার একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করেছিল। এখনো তারা একদলীয়ভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন। মুখে যতই বলেন তারা বিরোধী দলে বিশ্বাস করে না, বিরোধী দল থাকুক তারা চায় না। এবার যে নির্বাচন হয়েছে যেটা নির্বাচন হয় নাই। এটা হয়েছে দুর্বৃত্তায়ন।’

খালেদা জিয়ার মুক্তি ‘আইনি প্রক্রিয়ায় সম্ভবপর নয়’ উল্লেখ করে আন্দোলনের মাধ্যমে তা হতে পারে বলে মন্তব্য করেন মওদুদ। তিনি বলেন, ‘আন্দোলন ছাড়া আমাদের প্রিয় নেত্রীর  মুক্তি সম্ভবপর নয়। এবার আমাদেরকে সুপরিকল্পিতভাবে কর্মসূচি নিতে হবে। যাতে করে এবার আমরা পরাজিত না হই। এবার আমরা সত্যিকার অর্থে বেগম জিয়াকে মুক্তি করে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে আনতে পারি। তার মুক্তির মধ্য দিয়ে ইনশাল্লাহ দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে।’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ ও সহপ্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীমের পরিচালনায় আরও বক্তব্য দেন- দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস  চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমানসহ কেন্দ্রীয় নেতা খায়রুল কবির খোকন  হেলেন জেরিন খান, আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, আকরামুল হাসান প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি নেতা  আবদুস সালাম, সিরাজ উদ্দিন আহমেদ, নুরী আরা সাফা, শিরিন সুলতানা, মীর নেওয়াজ আলীসহ কয়েকশ নেতাকর্মী।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী