সংবাদ শিরোনাম

এমপিরা ঠিক করবে পরবর্তী পদক্ষেপ: ইইউ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ব্রেক্সিট নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে। এর আগ দিয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ) জানিয়েছে, ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্যদের হাত ধরেই ঠিক হবে ব্রেক্সিটের পরবর্তী পদক্ষেপ। সোমবার (১১ মার্চ) এক বিবৃতিতে এমনটা জানিয়েছে তারা। খবর বিবিসির।

ইইউ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যকার বর্তমান ব্রেক্সিট চুক্তি অনুসারে, চলতি মাসের ২৯ তারিখ থেকে কার্যকর হবে ব্রেক্সিট। এর আগে মঙ্গলবার (১২ মার্চ) চুক্তিটি নিয়ে চূড়ান্ত ভোট অনুষ্ঠিত হবে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে। ভোটে পার্লামেন্ট সদস্যরা ঠিক করবেন, প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে’র চুক্তি অনুসারে ব্রেক্সিট হবে কি হবে না!

এদিকে, মঙ্গলবার ভোট অনুষ্ঠিত না হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকে। উল্লেখ্য, গত মাসে ১৩ মার্চের মধ্যে ভোট আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মে।

বিরোধীদল লেবার ও ক্ষমতাসীন টরি সাংসদরা মে’কে বলেছেন, তাকে অবশ্যই নিজের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে হবে। ভোট আয়োজনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

এদিকে, এক বিবৃতিতে ইউরোপিয়ান কমিশন বলেছে, তারা ব্যাকস্টপ পরিকল্পনা বিষয়ে ব্রিটিশ এমপিদের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে ও প্রয়োজনে পরিকল্পনাটি সাময়িকভাবে কার্যকর করার বিষয়ে নিশ্চয়তা দিয়েছে।

কমিশনের এক মুখপাত্র বলেছে, ইইউ যেকোনো সময় যুক্তরাজ্যের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আলোচনায় বসতে প্রস্তুত রয়েছে।

মুখপাত্র আরও বলেন, আমরা ব্যাকস্টপ পরিকল্পনা প্রতিস্থাপনের জন্য আমাদের দিক থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাবো। ২৯ মার্চের আগে চুক্তিটি সংশোধন করার বিষয়ে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

ব্যাকস্টপ পরিকল্পনা

ব্রেক্সিটের পর আয়ারল্যান্ড ও নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের মধ্যে সীমান্ত নিরাপত্তা নিয়েই মূলত ব্যাকস্টপ পরিকল্পনা। আয়ারল্যান্ড ইইউ’র অংশ আর নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড যুক্তরাজ্যের অংশ। ইইউ’র সদস্য হওয়ায় এতদিন দুই ভূখণ্ডের লোকজন ও পণ্যের অবাধ যাতায়াতের সুযোগ ছিল। কিন্তু ব্রেক্সিটের পর সে সুযোগ থাকবে না।

ব্যাকস্টপ পরিকল্পনা অনুসারে, এ বিষয়ে কোনো চুক্তি না হলে ব্রেক্সিটের নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড ইইউ’র একক বাজার ও কাস্টমস ইউনিয়নের সুবিধা পাবে। ফলে, যুক্তরাজ্যের বাকি অংশ থেকে কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড।

এই পরিকল্পনার বিরোধীদের ভাষ্য, ব্যাকস্টপের কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য উত্তর আয়ারল্যান্ড চলে যেতে পারে ইইউ’র আইনের অধীনে।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী