সংবাদ শিরোনাম

নারীদের পাশে ব্যাংক

নারী উদ্যোক্তাদের সহায়তা করছে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো। নারীদের সহায়তা করতে বিশেষ ঋণ প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। যদিও ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে উদ্যোক্তাদের অনেক হয়রানির শিকার হতে হয় বলে অভিযোগ একাধিক উদ্যোক্তার।

তবে নারীরা ঋণ নিতে পারছেন এটি স্বীকার করতেই হবে। নারীদের জন্য কয়েকটি ব্যাংকের বিশেষ প্রকল্প তুলে ধরা হলোÑ

অগ্রণী ব্যাংক : নারী উদ্যোক্তাদের জন্য অগ্রণী ব্যাংকে দুটি ঋণ কর্মসূচি চালু আছে। এগুলো হচ্ছে নারী অগ্রণী ও মহিলাদের ঋণদান কর্মসূচি। এসএমই ঋণ প্রকল্পের আওতায় রয়েছে নারী অগ্রণী। এতে কোনো প্রকল্প স্থাপন করতে নারীদের মোট ব্যয়ের ৭৫ শতাংশ পর্যন্ত ব্যাংক ঋণ দিয়ে থাকে। বাকি ২৫ শতাংশ উদ্যোক্তাদের দিতে হয়। এতে সুদের হার ৯ শতাংশ। ১ লাখ টাকা থেকে ১ কোটি টাকা ঋণ দেওয়া হয়। এ ক্ষেত্রে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে কোনো প্রকার জামানত দিতে হয় না।

সোনালী ব্যাংক : নারী উদ্যোক্তাদের জন্য সোনালী ব্যাংকের নতুন এসএমই স্কিম ‘নিপুণা’। এতে ৯ শতাংশ হার সুদে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ প্রদান করা হয়। এ ছাড়া তাদের আরও ৫টি ঋণ প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে, শহরের ক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তাদের জন্য। এতে সর্বোচ্চ ১২ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। সুদের হার ১২ শতাংশ। বাকি ৪টি পল্লী উন্নয়ন ঋণ কর্মসূচির আওতায় পরিচালিত হয়। এর মধ্যে জাগো নারী ঋণ কর্মসূচিতে ১১ শতাংশ সুদে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ দেওয়া হয়। বাকি প্রকল্পগুলোতে ১০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। সুদের হার ৯ থেকে ১২ শতাংশ।

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক : নারী উদ্যোক্তাদের জন্য তাদের একটি প্রকল্প রয়েছে। এমটিবি গুণবতী নামে তারা এটি ব্যান্ডিং করেছে। ৯ শতাংশ সুদে এর আওতায় ঋণ দেওয়া হয়। ঋণের পরিমাণ ৫০ হাজার থেকে ১৫ লাখ। এ ঋণ পাওয়ার জন্য কমপক্ষে ১ বছরের ব্যবসায়িক অভিজ্ঞতা প্রযোজ্য।

মার্কেন্টাইল ব্যাংক : অনন্যা নামে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একটি এসএমই ঋণ প্রকল্প রয়েছে তাদের। ৫০ হাজার থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। সুদের হার ৯ শতাংশ। এর মধ্যে ৮ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণের বিপরীতে কোনো জামানত লাগে না।

ইস্টার্ন ব্যাংক : নারীদের জন্য ইস্টার্ন ব্যাংকে বহুবিধ প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে সঞ্চয়, ঋণ, কার্ডসহ নানা ধরনের বিশেষ সেবা দিচ্ছে নারীদের। এগুলোতে নারীরা বিশেষ ছাড়ও পাচ্ছে। নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ২ থেকে ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দিচ্ছে। সুদের হার ১০ শতাংশ। নারী উদ্যোক্তারা যে কোনো ধরনের ব্যবসার জন্য এ ঋণ নিতে পারেন। আমানতের ক্ষেত্রেও তারা বাড়তি সুবিধা পেয়ে থাকেন। এ ছাড়াও নারী উদ্যোক্তাদের অন্যান্য সুবিধাও দেওয়া হয়।

যমুনা ব্যাংক : যমুনা নারী উদ্যোগ নামে তাদের একটি ঋণ প্রকল্প রয়েছে। এর আওতায় ৩ লাখ থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। সুদের হার ৯ শতাংশ।

ব্র্যাক ব্যাংক : নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একাধিক প্রকল্প রয়েছে। এসব প্রকল্পে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা ঋণ দিচ্ছে। সব ধরনের ব্যবসার জন্য ঋণ দেওয়া হয়। সুদের হার ৯ থেকে ১০ শতাংশ। কোনো জামানতের প্রয়োজন হয় না।

ট্রাস্ট ব্যাংক : ট্রাস্ট ব্যাংক ছোট পরিসরের ব্যবসার জন্য নারীদের দিচ্ছে ১ থেকে ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ। মাঝারি ও বড় ব্যবসার জন্য দিচ্ছে ৫০ লাখ থেকে দেড় কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ। সুদের হার ৯ থেকে ১০ শতাংশ। ঋণের পরিমাণ ২৫ লাখের কম হলে জামানত লাগবে না। তবে এর বেশি হলে জামানত লাগবে।

ব্যাংক এশিয়া : সুবর্ণ নামে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একটি ঋণ প্রকল্প রয়েছে। এতে জামানত ছাড়া ২ থেকে ৮ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। ৮ লাখ থেকে ৫০ লাখ পর্যন্ত ঋণ নিলে জামানত দিতে হয়। সুদের হার নির্ভর করে ঋণের পরিমাণের ওপর।

এবি ব্যাংক : নারী উদ্যোক্তাদের জন্য অপরাজিতা ঋণ নামের প্রকল্প রয়েছে এবি ব্যাংকের। এ প্রকল্পের আওতায় ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ পাবেন নারী উদ্যোক্তারা। সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা ঋণ দিচ্ছে তারা। ঋণের পরিমাণ নির্ভর করে ব্যবসার ওপর। সুদের হার ১০ শতাংশ।

আইএফআইসি ব্যাংক : প্রত্যাশা এবং প্রান্ত নারী নামে নারীদের জন্য বিশেষ দুটি প্রকল্প নিয়ে এসেছে আইএফআইসি ব্যাংক। প্রত্যাশা প্রকল্পে ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ প্রদান করা হয়। এ ছাড়া সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ প্রদান করে এ প্রকল্পের আওতায়। সুদের হার ৯ শতাংশ।প্রান্ত নারী প্রকল্পের আওতায় গ্রামীণ প্রান্তিক নারীদের ১ লাখ থেকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ প্রদান করা হয়। এ ছাড়া ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানত যুক্ত ঋণ প্রদান করা হয় এ প্রকল্পের আওতায়।

মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেড : দীপ্ত নামে নারী উদ্যোক্তাদের বিশেষ ঋণ কর্মসূচি নিয়ে এসেছে মাইডাস ফাইনান্সিং লিমিটেড। এতে ৯ শতাংশ হার সুদে ৫০ হাজার থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ প্রদান করা হয়। ঋণপ্রাপ্তির জন্য কমপক্ষে ২ বছরের ব্যবসায়িক অভিজ্ঞতার প্রয়োজন হয়।

বিআইএফএফএল : নারী উদ্যোক্তাদের জন্য শৈলী নামে ঋণ প্রকল্প নিয়ে হাজির হয়েছে বাংলাদেশ ইনফ্রাস্ট্রাকচার ফাইনান্স ফান্ড লিমিটেড। ব্যবসায়ের আকারের ওপর ভিত্তি করে তারা ৭ থেকে ৮.৫ শতাংশ হার সুদে ক্ষুদ্র, মাঝারি এবং বৃহৎ বিনিয়োগ করে থাকে।

আইআইডিএফসি : ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট ফাইনান্স কোম্পানি লিমিটেড মহিলা উদ্যোক্তা ঋণ নামে ঋণ প্রকল্প নিয়ে এসেছে। এতে বিভিন্ন মেয়াদে ৫ লাখ হতে ২ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ প্রদান করা হয়। সুদের হার মেয়াদ এবং ঋণের পরিমাণের ওপর নির্ভর করে।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী