সংবাদ শিরোনাম

লাভের স্বপ্নে লোকসান

কক্সবাজারে মাঠে পর্যাপ্ত লবণ থাকার পরও আমদানি করায় দেশীয় লবণের মূল্যে ধস নেমেছে। এতে লাভের স্বপ্ন ছেড়ে লোকসানের হিসেব কষছেন তারা। ভবিষ্যতে এ শিল্প নিয়েও চিন্তিত।

জেলার ৬০ হাজার একর জুড়ে রয়েছে লবণ শিল্প।এ শিল্পে প্রায় ৪৫ হাজার চাষিসহ অনেকে জড়িত। লবণের উৎপাদন খরচের চেয়ে দাম কম হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন তারা। সিন্ডিকেট রোধসহ ও নায্য দাবির জন্য প্রধানমন্ত্রী ও শিল্পমন্ত্রীর বরাবরে আবেদনও করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

পেকুয়ার মগনামার চাষি ফরিদুল আলম বলেন, এক মন লবণের উৎপাদন ব্যয় ৩ শ টাকা হলে বিক্রি হচ্ছে ১ শ ৫০ টাকা থেকে ১ শ ৭০ টাকা। এক মাস আগে মন প্রতি লবণ ৫  শ থেকে ৬ শ টাকায় বিক্রি হয়েছে। মূল্যে এমন ধসে লোকসান গুনতে হচ্ছে।

চাষি আরো বলেন, ঋণ নিয়ে চাষ শুরু করি। কিন্তু এখনো ঋণ শোধ করতে পারিনি। পটিয়া ও নারায়গঞ্জের কিছু অসাধু মিল মালিক সিন্ডিকেট চক্রান্ত করে লবণের দাম কমিয়েছে।

বাংলাদেশ লবণ চাষি সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট শহিদুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আগের বছরের দামের উপর নির্ভর করে চাষিরা ঋণ নিয়ে লবণ চাষ করেছে। এ অবস্থায় যদি ৫ শ টাকার লবণ ১ শ ৭০ টাকা হয়, তাহলে চাষিদের মজুরির টাকা পর্যন্ত উঠবেনা।

তিনি আরো বলেন, বিদেশ থেকে লবণ না আসায় দেশি লবণের দাম ভাল ছিল। কিন্তু চাহিদা পূর্ণ থাকার পরেও ভ্যাট আর কর দিয়ে লবণ আমদানি করা হচ্ছে। অসাধু ব্যবসায়ীরা বিদেশি লবণের সঙ্গে দেশি লবণ মিশিয়ে বিক্রি করছে। এতে দুর্দশায় পড়েছেন চাষি ও বিনিয়োগকারীরা।

লবণ চাষি সংগ্রাম কমিটির সভাপতি মোর্শেদুর রহমান বলেন, ৪০ শতক জায়গায় লবণ উৎপাদনে খরচ হচ্ছে ৮০ থেকে ৮৫ হাজার টাকা। কিন্তু লবণ চাষিরা পাচ্ছেন ৪৫ থেকে ৫০ হাজার টাকা।

তিনি আরো বলেন, ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে মণ প্রতি লবণের দাম ছিল ৫ শ থেকে ৬ শ টাকা। ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে কমে দাঁড়িয়েছে ৪ শ থেকে ৪ শ ৫০ টাকায়। ২০১৮-২০১৯ সালে দাঁড়িয়েছে ১ শ ৭০ টাকা থেকে ১ শ ৬০ টাকায়। প্রতি মণ লবণ উৎপাদনে খরচ পড়ছে ৩ শ টাকা।

বিসিক কক্সবাজারের উপ-মহাব্যবস্থাপক দিলদার আহমদ চৌধুরী বলেন, এবার চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের ৬০ হাজার একর জমিতে লবণ চাষ হয়েছে। এ বছর লবণের চাহিদা রয়েছে ১৬ লাখ ৬১ হাজার মেট্রিক টন। চাষিদের বিষয়টি মন্ত্রণালয়কে অবহিত করেছি।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী