সংবাদ শিরোনাম

হরিণের অভয়ারণ্য বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক

চকরিয়ায় হরিণের অভয়ারণ্য হয়ে উঠেছে ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক। প্রতিবছর বাড়ছে চিত্রা হরিণ ও মায়া হরিণ। পড়ন্ত বিকেলে পার্কের লেকে দলে দলে ঘুরে বেড়াচ্ছে হরিণের পাল। তা দেখে মুগ্ধ হচ্ছেন দর্শনার্থীরা।

সাফারি পার্কের ফরেস্টার মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, পার্কে তিন হাজারের বেশি হরিণ রয়েছে। হরিণ সবসময় পরিচ্ছন্ন স্থানে বিচরণ করে, টক জাতীয় খাবার পছন্দ করে। নিবিড় পরির্চযায় চিত্রা ও মায়া হরিণের বংশ বিস্তার বেড়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডুলাহাজারা ও হারগাজা ব্লকের বগাচতর অরণ্যে হরিণ প্রজনন কেন্দ্র গড়ে তুলেন। সেই থেকে এখানে হরিণের প্রজন বাড়াতে কাজ করছে বনবিভাগ। ১৯৯৮ সালে সরকার এ এলাকার ৯শ হেক্টর বনাঞ্চলে দেশের প্রথম সাফারি পার্ক প্রতিষ্ঠা করে। দেশ-বিদেশ থেকে বিলুপ্ত প্রায় প্রাণী সংগ্রহ করে এ পার্কে উন্মুক্ত করে।

মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বর্তমানে পার্কে বিলুপ্ত প্রায় ১৪৯ প্রজাতির স্তন্যপায়ী, ১৫২ প্রজাতির সরীসৃপ প্রাণী, ৬১ প্রজাতির পাখি রয়েছে। এছাড়া পার্কে অবাধে বিচরণ করছে ৮০৬ প্রজাতির বন্যপ্রাণী।

স্তন্যপায়ী প্রাণীর মধ্যে রয়েল বেঙ্গল টাইগার, সিংহ, মায়া হরিণ, চিত্রা হরিণ, সাম্বার হরিণ, বাঁশ ভাল্লুক, গয়াল, বাঘদাসা, মার্বেল বিড়াল, চিতা বিড়াল, বনরুই, লজ্জাবতী বানর, আসামি বানর, কালো উল্লুক, মেছোবাঘ, ওয়াইল্ডবিস্ট।

সরীসৃপ প্রজাতির মধ্যে রয়েছে কালিকাইট্টা, রক্তচোষা, কড়ি কাইট্টা, কালো গুই, ছিম কাছিম, পানি সাপ, বোস্তামি কাছিম, তারকা কচ্ছপ, সুন্দী কাছিম, মেটে সাপ, টিকটিকি, তক্ষক, অজগর, কুমির, ঘড়িয়াল, হলুদ পাহাড়ি কচ্ছপ, সোনা ব্যাঙ্।
 
পাখির মধ্যে রয়েছে মাথুরা, প্যাঁচা, ইমু, ডুবুরি, কালোমাথা মাছরাঙ্গা, গু শালিক, কাটমৌর, কালোমাথা ময়না, তিলা ঘুঘু, সবুজ ঘুঘু, কানাবক, সোনালী ফিজেন্ট, টিয়া, গো-বক, নিশি বক, কোকিল, সিপাহি বুলবুলি, রুপালী ফিজেন্ট, ছোট সরালী, দোয়েল, ঈগল, বনমোরগ, ডাহুক, তিলা মুনিয়া, মদন টাক, লালচে কাঠঠোকরা, কালেম, কাকাতুয়া, খয়েরি ঈগল, রাজ ধনেশ, ময়ূর, কালিজ ফিজেন্ট, লাভবার্ড, লালমোহন তোতা, সাদা ঘুঘু, ভুবন চিল, এমারেলড ঘুঘু, টার্কিস ফিজেন্ড, গ্রিফন শকুন, লেজার ফ্ল্যামিংগু, সারস, সাদা পেলিকন, হাড়গিলা, রঙ্গিলা বক।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী