সংবাদ শিরোনাম

সুদানে ৫ বিক্ষোভকারী ও সেনাবাহিনীর এক মেজর নিহত

সুদানের রাজধানীতে সোমবার পাঁচ বিক্ষোভকারী ও সেনাবাহিনীর এক মেজর নিহত হয়েছে। দেশ পরিচালনায় অন্তবর্তীকালীন সরকারের ব্যাপারে বিক্ষোভকারীদের নেতাদের সঙ্গে ক্ষমতাসীন সেনা কর্মকর্তারা একটি সমঝোতায় পৌঁছানোর কয়েকঘন্টা পর এই ঘটনা ঘটল।
প্রসিকিউটর জেনারেলের কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত মাসে সরকার বিরোধী বিক্ষোভকালে বিক্ষোভকারীদের নিহতের ঘটনায় ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।এই বিবৃতির পরেই সর্বশেষ হামলার ঘটনাটি ঘটে।
খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
এই হামলায় খার্তুমে সেনা সদরদপ্তরের বাইরে এক মেজর ও একজন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। এখানে কয়েক সপ্তাহ ধরে বিক্ষোভকারীরা অবস্থান করছে। এরা বাশারের উচ্ছেদের পর যেই সব সেনা কর্মকর্তারা ক্ষমতায় এসেছেন তাদের পদত্যাগ দাবি করছিল।
ক্ষমতাসীন সামরিক পরিষদ জানিয়েছে, ‘অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিদের’ গুলিতে তিন সৈন্য, বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারী ও বেসামরিক লোক আহত হয়েছে।
পরে এই আন্দোলনের সঙ্গে সম্পৃক্ত চিকিৎসকদের একটি কমিটি জানায়, এই ঘটনায় আরো চার বিক্ষোভকারী গুলিতে মারা গেছে।
তবে তারা আন্দোলন স্থানে নিহত হয়েছে কিনা সে ব্যাপারে স্পষ্টভাবে কিছু জানানো হয়নি।
সামরিক পরিষদ শেষ রাতের সংবাদ সম্মেলনে জানায়, তারা বিক্ষোভকারীদের মধ্যে কয়েকজন সশস্ত্র অনুপ্রবেশকারীর উপস্থিতি লক্ষ্য করেছেন।
বিক্ষোভকারীদের সংগঠন অ্যালাইয়েন্স ফর ফ্রিডম অ্যান্ড চেঞ্জ জানিয়েছে, সোমবারের সহিংসতাটি আমাদের সাথে সেনা কর্মকর্তাদের ‘সমঝোতাকে বাধাগ্রস্ত করার’ উদ্দেশ্যে চালানো হয়েছে।
তারা এই ভয়াবহ হামলার জন্য সাবেক সরকারের মিলিশিয়াদের দায়ি করেছে।
সোমবার ভোরে সেনাকর্মকর্তারা ও বিক্ষোভকারীদের নেতারা জানান, বেসামরিক প্রশাসনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের ব্যাপারে তাদের মধ্যে একটি সমঝোতা হয়েছে।
বিক্ষোভকারীদের প্রতিনিধি তাহা ওসমান বলেন, ‘আজকের বৈঠকে আমরা সরকার কাঠামো ও তাদের ক্ষমতার ব্যাপারে সম্মত হয়েছি।’
তিনি আরো বলেন, ‘সরকার স্বাধীন স্বার্বভৌম পরিষদ, মন্ত্রিপরিষদ ও আইনপরিষদকে মেনে চলবে।’
ওসমান বলেন, ‘ক্ষমতা হস্তান্তরের সময় ও সরকার কাঠামোর’ ব্যাপারে আলোচনার জন্য মঙ্গলবার আরেকটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।
সামরিক পরিষদ শর্তগুলোর ব্যাপারে মতৈক্যে পৌঁছার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
পরিষদের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট জেনারেল শামসেদ্দিন কাবাশি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা তিন স্তর বিশিষ্ট অন্তবর্তীকালীন সরকার গঠনে সম্মত হয়েছি। স্বাধীন স্বার্বভৌম পরিষদ, নির্বাহী পরিষদ ও আইন পরিষদ।’
তিনি আরো বলেন, ‘কাল আমরা সরকার কাঠামোতে অংশগ্রহণের হার ও ক্ষমতা হস্তান্তরের সময় নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাব।’
সেনা কর্মকর্তারা দুই বছর মেয়াদী অন্তবর্তীকালীন সরকার চান। তবে বিক্ষোভকারীরা এই মেয়াদ চার বছর চায়।
চিকিৎসক পরিষদ গত মাসে জানিয়েছে, ডিসেম্বরে শুরু হওয়া সাবেক প্রেসিডেন্ট বশিরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলাকালে সংঘর্ষ সহিংসতায় ৯০ জন নিহত হয়েছে।
আনুষ্ঠানিকভাবে এই সংখ্যা ৬৫ বলা হয়েছে।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী