সংবাদ শিরোনাম

পর্যটক বরণে প্রস্তুত রূপবৈচিত্র্যের কক্সবাজার

ডেইলি কক্সবাজার : প্রতিবছরই ঈদের ছুটিতে লাখো পর্যটকে মুখর হয়ে ওঠে পর্যটন শহর কক্সবাজার। এবারও ঈদের টানা ছুটিতে তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। ইতোমধ্যে চার শতাধিক হোটেল, মোটেল বুকিং হওয়ায় চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। ঈদের ছুটি মানে আনন্দ উপভোগ। আর এই আনন্দে ভিন্ন আমেজ যোগ করে ভ্রমণ। প্রতিবছরই ভ্রমণপিপাসুদের আগ্রহের জায়গা কক্সবাজারের নয়নাভিরাম সমুদ্র সৈকত। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। ভ্রমণাপিপাসুদের বরণ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখে পর্যটন সংশ্লিষ্টরা। পাশাপাশি রেস্টুরেন্টগুলোকে সংস্কার কাজ করা হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঈদকে সামনে নিয়ে নতুন সাজে সাজছে পর্যটন রাজধানী কক্সবাজার। হোটেল-মোটেল গেস্ট হাউস ও কটেজগুলোর রং পাল্টানোসহ নতুন রূপে সাজানো হচ্ছে। রেস্তোরাঁগুলোতেও চলছে ধোয়ামোছা ও রং লাগানোর কাজ। 

পর্যটন ব্যবসায়ীরা জানান, আসছে ঈদের টানা ছুটি পেয়ে হোটেল-মোটেলের কক্ষ ও স্যুট আগাম বুকিং দিয়ে রেখেছেন পর্যটকরা। ঈদের পরের দিন থেকে পর্যটক সমাগম শুরু হবে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ঈদ-পরবর্তী এক সপ্তাহ ভ্রমণপিপাসুর পদভারে মুখরিত থাকবে কক্সবাজার।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসনের একটি সুত্র ডেইলি কক্সবাজারকে জানিয়েছেন, পর্যটক হয়রানি বন্ধে হোটেল-মোটেল ও রেস্তোরাঁয় মূল্য তালিকা টাঙ্গানোর নির্দেশসহ বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া পর্যটক হয়রানি বন্ধে জেলা প্রশাসন নানা ধরণের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন ।

সমুদ্র সৈকতের লাবনী, সুগন্ধা, কলাতলীসহ ১১টি পয়েন্টে স্থাপন করা হয়েছে তথ্য কেন্দ্র (ইনবক্স)। যে কোনো অভিযোগ এখানে করতে পারবে পর্যটকরা। পাশাপাশি দেওয়া হয়েছে একটি হটলাইন নম্বর (০১৭৩৩৩৭৩১২৭)।

বাংলাদেশ ট্যুরিস্ট পুলিশের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেলারেল (ডিআইজি) মোল্লা ফখরুল ইসলাম ডেইলি কক্সবাজারকে বলেছেন,‘পর্যটন নগরী কক্সবাজারসহ সারা দেশে ভ্রমণ পিয়াসু দেশি-বিদেশি পর্যটকদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেওয়া আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। এজন্য ভ্রমণে আসা কোনও পর্যটক হয়রানির শিকার হলে কাউকে রেহাই দেওয়া হবে না। অভিযুক্তদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া হবে।’

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইন বলেন, পর্যটকদের নিরাপত্তায় সবসময় সর্তকাবস্থায় রয়েছে পুলিশ। পর্যটকরা যাতে কোনো ধরনের ছিনতাই কিংবা হয়রানির শিকার না হন সেজন্য পোষাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোষাকে এবং পর্যটক বেশে পুরুষ-মহিলা পুলিশের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের পুলিশ সুপার বলেন, ‘ ট্যুরিস্টদের নিরাপত্তায় আমরা পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছি। সৈকত এলাকায় শতাধিক পোশাকধারী পুলিশ মোতায়েন থাকবে। পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে টহল পুলিশ ও সাদা পোশাকে পুলিশ নিয়োজিত থাকবে। কন্ট্রোল রুম, পর্যবেক্ষণ টাওয়াসহ পুরো সৈকতে পুলিশের নজরদারি থাকবে।’

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, পর্যটন সম্ভাবনাময় শিল্প।পর্যটক হয়রানি বন্ধে হোটেল-মোটেল ও রেস্তোরাঁয় মূল্য তালিকা টাঙ্গানোর নির্দেশসহ বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া পর্যটক হয়রানি বন্ধে জেলা প্রশাসন নানা ধরণের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন ।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী