সংবাদ শিরোনাম

কক্সবাজারে হচ্ছে দেশের প্রথম গভীর সমুদ্র বন্দর

অবশেষে মহেশখালীর মাতারবাড়িতেই হতে যাচ্ছে দেশের প্রথম গভীর সমুদ্র বন্দর। জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি-জাইকা’র বিনিয়োগে এ বন্দর গড়ে তোলার পরিকল্পনা হলেও চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ এর পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে। প্রাথমিক সমীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল পাওয়ায় আগামী সেম্টেম্বর থেকে শুরু হবে চূড়ান্ত সমীক্ষার কাজ।

গত এক দশক ধরে গভীর সমুদ্র বন্দর নিয়ে আলোচনা চলে আসলেও স্থান নির্ধারণ দেখা দেয় নানা জটিলতা। এছাড়া বিনিয়োগকারী দেশ নিয়েও ছিলো টানাপোড়েন। এ অবস্থায় গভীর সমুদ্র বন্দর গড়ে তোলার জন্য কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ি এলাকা নিয়েই ছিলো প্রতিবেশী বেশক’টি দেশের আগ্রহ। ইতোমধ্যে মাতারবাড়িতে তিনটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ বেশ কিছু শিল্প কারখানা গড়ে উঠছে।

এসব শিল্প প্রতিষ্ঠানের পণ্য লোড-আনলোড করার জন্য জাইকার তত্ত্বাবধানে একটি জেটি নির্মাণ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে জাইকার অর্থায়নে প্রায় তিন কিলোমিটার এলাকা ড্রেজিং’ও সম্পন্ন হয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দর থেকে মাত্র ৫০ নটিক্যাল মাইল দূরে অবস্থান মাতারবাড়ির। আর কক্সবাজার থেকে দূরত্ব ৪০ নটিক্যাল মাইলের কম। কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ মনে করছে, এখানে বন্দর হলে যোগাযোগের কারণে দেশের উন্নয়নে বড় ভ’মিকা রাখতে পারবে।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্নেল অব. ফোরকান আহমেদ বলেন, ‘এখান থেকে ট্রান্সপোর্টেশন এবং বিভিন্ন জিনিসপত্র আনা-নেয়ার ক্ষেত্রে অনেক সুবিধা হবে। বাংলাদেশের অর্থনীতির যে চাকা সেটা কিন্তু ঘুরে যাবে।’

বর্তমানে দেশের আমদানি-রপ্তানির ৯২ শতাংশ’ই হয় চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে। সরকারের আগামীতে যে লক্ষ্য সেটাকে বাস্তবে রূপ দিতে হলে শুধু চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি নয়, গভীর সমুদ্র বন্দর স্থাপন জরুরি বলে মনে করে বি জি এম ই এ।

বিজিএমইএ-এর প্রথম সহ সভাপতি মাইনুদ্দিন আহমেদ মিন্টু বলেন, ‘আমরা আশা করছি ২০৪১ সালের মধ্যে দেশের প্রবৃদ্ধি ডাবল ডিজিটে রূপান্তর সম্ভব। এজন্য বন্দরের সক্ষমতার পাশাপাশি গভীর সমুদ্রবন্দরেরও প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।’

চট্টগ্রাম বন্দরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সরকারের অনুমোদন সাপেক্ষে ২০১৮ সালের শেষের দিকে বন্দর নির্মাণের কাজ শুরু করবে জাইকা। আর ২০২৪ থেকে ২৫ সালের মধ্যে পুরোদমে অপারেশনে যাবে এ বন্দর। প্রস্তাবনা অনুযায়ী, পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ হবে এ বন্দর।

Editor- Sayed Mohammad SHAKIL.
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী