সংবাদ শিরোনাম

ভিসা পেয়েছেন প্রথম ফ্লাইটের কিছু হজযাত্রী

সরকারি ব্যবস্থাপনার ৪১৯ হজযাত্রী নিয়ে প্রথম হজ ফ্লাইটটি আগামী ২৪ জুলাই সকাল ৮টায় জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা থেকে ছেড়ে যাবে। এই ফ্লাইটের কিছু হজযাত্রীকে গতকাল ভিসা দেওয়া হয়েছে। তবে আজ থেকে ভিসা প্রক্রিয়া চলবে স্বাভাবিকভাবেই। যদিও হজযাত্রীরা রাজধানীর আশকোনা হজক্যাম্পে আসতে শুরু করবেন আগামী ২১ জুলাই সকাল থেকে। এর পরদিন আনুষ্ঠানিকভাবে হজ ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ধর্ম মন্ত্রণালয় ও হজ অফিসের তথ্যানুযায়ী, প্রতি বছরই বাংলাদেশি হজযাত্রীরা সৌদি আরব যাওয়ার আগে দুই থেকে তিন দিন হজক্যাম্পে অবস্থান করেন। এ সময় তারা ইমিগ্রেশন, বিমানের টিকিট ও বোর্ডিংকার্ড গ্রহণ এবং পাসপোর্টে সৌদি রিয়াল অ্যান্ডোসমেন্টসহ যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করেন। এ কারণে হজক্যাম্প ধুয়েমুছে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। প্রস্তুতির কাজ অবশ্য শেষ পর্যায়ে। বাড়ানো হয়েছে হজক্যাম্পের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও।

হজ অফিসের পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশি ভিসা দেওয়ার সিস্টেমের সঙ্গে সৌদি সিস্টেমের মিল আছে কিনা তা পরীক্ষা করতেই দেশটির দূতাবাসে কিছুসংখ্যক হজযাত্রীর নামে ভিসা ইস্যুর ডিওলেটার দেওয়া হয়েছিল। উভয় দেশের সিস্টেমের মধ্যে মিল থাকায় পরীক্ষামূলকভাবে তাদের ভিসা দেওয়া হয়েছে। সোমবার থেকে এই কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবেই চলবে। হজ অফিস ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, এ বছর এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ বাংলাদেশি হজ পালনের জন্য সৌদি আরবে যাবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাচ্ছেন ১০ হাজার ও বেসরকারিভাবে এক লাখ ১৭ হাজার ১৯৮ জন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের (বিজি ১০১১) প্রথম ফ্লাইটটি ২৪ জুলাই সকাল ৮টায় জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করবে। এর যাত্রী হবেন হজক্যাম্পে অবস্থানরত সরকারি ব্যবস্থাপনার ৪১৯ জন। এই যাত্রীরা আশকোনার হজ অফিসে এসে রিপোর্ট করবেন আগামী ২১ জুলাই। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, হজযাত্রীদের সহযোগিতা করতে ক্যাম্পে রোভার স্কাউটস, আনসার ও পুলিশ সদস্যরা নিয়োজিত থাকবেন। বাড়ানো হবে নিরাপত্তা। ক্যাম্পে প্রবেশদ্বার থাকবে দুটি, এতে বসানো হবে আর্চওয়ে। গেট দিয়ে প্রবেশকালে সন্দেহভাজনদের মেটাল ডিক্টেটর দিয়ে তল্লাশি করা হবে। এ ছাড়াও র‌্যাব, পুলিশ ও বিভিন্ন গোয়েন্দা ইউনিটের সদস্যদের কড়া নজরদারিও থাকবে। প্রবেশদ্বারের পাশেই থাকবে ঢাকা মহানগর পুলিশের কন্ট্রোল রুম। হজক্যাম্পে দর্শনার্থী বেশে চোর ও পকেটমার যেন প্রবেশ করতে না পারে, সে জন্য সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও থাকবে সতর্ক অবস্থায়। এমনকি অনুমতি ছাড়া হজক্যাম্পের ডরমেটরিতে কোনো দর্শনার্থীকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। এগুলোর গেটে থাকবেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, র‌্যাব ও প্রশিক্ষিত স্কাউট টিমের সদস্যরা। হজযাত্রীদের খাবার নির্বিঘœ করতে ক্যাম্পের ভেতরে কয়েকটি রেস্টুরেন্ট ও দোকান বসানো হবে। থাকবে হজযাত্রীর টিকা গ্রহণ সেন্টার, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অফিস, বিভিন্ন ব্যাংকের বুথ ও হজ এজেন্সি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) অফিস।

Editor- Sayed Mohammad SHAKIL.
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী