সংবাদ শিরোনাম

জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন না সু চি

আসন্ন জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন না মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি। জাতিগত রোহিঙ্গা গণহত্যার ঘটনায় আন্তর্জাতিক সমালোচনা ও প্রতিবাদের মুখে এ সিদ্ধান্ত আসলো।

মঙ্গলবার স্টেট কাউন্সিলরের পররাষ্ট্র বিষয়ক মুখপাত্র কিয়াউ জেইয়া দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলোকে একথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে ব্যস্ত স্টেট কাউন্সিলর, সেখানে তাকে মনোযোগ দিতে হচ্ছে।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে সু চির বদলে ভাইস প্রেসিডেন্ট হেনরি ভান থিও মিয়ানমারের প্রতিনিধিত্ব করবেন বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

বিশ্লেষকদের ধারণা, সু চি জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিলে চলমান রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞের ঘটনায় বিশ্বনেতাদের তোপের মুখে পড়তে পারেন এমনটা আশংকা করছে মিয়ানমার সরকার। এজন্যই অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন না তিনি।

উল্লেখ্য, মিয়ানমার বাহিনীর অবরোধের মুখে গত ২৪ আগস্ট মধ্যরাতের পর রোহিঙ্গা যোদ্ধারা অন্তত ২৫টি পুলিশ স্টেশনে হামলা ও একটি সেনাক্যাম্পে প্রবেশের চেষ্টা চালায়। এতে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ শুরু হয়।

এরপর রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে অভিযান শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। একের পর এক রোহিঙ্গা গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। অভিযানে হেলিকপ্টার গানশিপেরও ব্যাপক ব্যবহার করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। সীমান্তে পুঁতে রাখা হয় স্থলমাইন।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে নির্বিচারে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা এবং নারীদের গণধর্ষণের অভিযোগ উঠে। তাদের হত্যাযজ্ঞ থেকে রেহাই পায়নি বয়োবৃদ্ধ নারী এবং শিশুরাও। নিহত হয়েছেন প্রায় তিন হাজার রোহিঙ্গা।

প্রাণ বাঁচাতে স্রোতের বেগে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আসতে শুরু করে। জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার (ইউএনএইচসিআর) এর অফিস জানিয়েছে, গত কয়েকদিনে জাতিগত নিধনযজ্ঞের মুখে প্রায় চার লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে বাংলাদেশে।

Editor in Chief : Sayed Shakil
Office: Evan plaza, sador model thana road, cox’sbazar-4700. Email: dailycoxsbazar@gmail.com / phone: 01819099070
অনুমতি ছাড়া অথবা তথ্যসূত্র উল্লেখ না করে এই ওয়েব সাইট-এর কোন অংশ, লেখা বা ছবি নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনী